তারিখ : ১৫ নভেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

যক্ষ্মা রোগের জম্ম ও ইতিহাস,২৪ মার্চ বিশ্ব যক্ষ্মা দিবস

যক্ষ্মা রোগের জম্ম ও ইতিহাস,২৪ মার্চ বিশ্ব যক্ষ্মা দিবস
[ভালুকা ডট কম : ১১ মার্চ]
যক্ষ্মা একটি জীবানু ঘটিত মারাত্নক সংক্রামক রোগ যা মাইকো-ব্যাকটেরিয়াম টিউবারকুলোসিস নামক জীবানু দিয়ে হাচিঁ-কাশির মাধ্যমে সংক্রামন হয়ে থাকে ।এক নাগাড়ে দুই সপ্তাহের অধিক কাশি, জ্বর ও বুকে ব্যাথা যক্ষ্মার প্রধান লক্ষ্মণ ।কফ পরীক্ষা হচ্ছে যক্ষ্মা রোগের এক মাত্র নির্ভরযোগ্য পরীক্ষা, নিকটস্থ্য ব্র্যাক অফিস, উপজেলা হসপিটাল, বক্ষব্যধি ক্লিনিক ও বিভিন্ন এনজিও ক্লিনিকে বিনামূল্যে ( Genexpert বা Microscopyর মাধ্যমে)  কফ পরীক্ষা ও চিকিৎসা প্রদান করা হয় ।

যক্ষ্মা একটি মারাত্নক  রোগ হিসেবে সম্ভবতঃ প্রস্তর যুগ হতে পরিচিত। তিন হাজার বছরের পুরানো মিশরের মমির ফুসফুসে যক্ষ্মার ক্ষত পাওয়া গিয়েছে ।গ্রীক স্বর্ণ  যুগে যক্ষ্মা  phthisis(থাইসিস) নামে পরিচিত ছিল , সাধারণ ভাবে একে ক্ষয়রোগ বা ক্ষয়কাশ বলা হত । সপ্তদশ শতাব্দীতে ফ্রান্সিসকাস সিলভিয়াস নামে নেদারল্যান্ডের লিডেন বাসি জৈনক ব্যক্তি মারা যাওয়া ব্যক্তিদের ফুসফুসে গোটা আকৃতির ক্ষত দেখতে পেয়ে এর নাম করণ করেন টিউবারসেল ।জোহান শনলেইন নামক জনৈক ব্যক্তি ১৮৩৯ সালে সর্বপ্রথম এ রোগের নাম করণ করেন টিউবারকুলোসিস।

ডঃ রর্বাট কচ ১৮৮২ সালের ২৪ মার্চ বার্লিনে যক্ষ্মার জীবানু  আবিষ্কারের কথা ঘোষণা করেন, যখন সারা ইউরোপ ও আমেরিকা মহাদেশ  জুড়ে যক্ষ্মারোগে  মহামারী আকারে প্রতি ৭ জনের মধ্যে একজন  মারা যাচ্ছিল । উক্ত যুগান্তকারী আবিষ্কারের পর থেকে এখন পর্যন্ত বিসিজি টিকা, টিউবারকুলিন টেষ্ট, যক্ষ্মা রোগের নানা প্রকার ঔষধ , যক্ষ্মারোগ কর্মসূচি বাস্তবায়ন প্রক্রিয়া ডটস্ পদ্ধতি ইত্যাদি  নানা প্রকারের প্রযুক্তিগত উন্নয়ন হয়েছে । তারপর প্রাপ্ত বয়ষ্কদের মৃত্যুর কারণ হিসেবে  সংক্রামক রোগের মধ্যে যক্ষ্মা হচ্ছে প্রধানতম।

১৮৮২ সাল থেকে যক্ষ্মারোগে এ পর্যন্ত ২০ কোটিরও বেশী রোগী মারা গিয়েছে এবং এর সাথে প্রতি বছরই  আরো লক্ষ লক্ষ মৃত্যুর  সংখ্যা যোগ হচ্ছে । সর্ব শেষে ডঃ রবার্ট কচ ১৮৮২ সালে২৪ মার্চ যক্ষ্মার জীবানু  আবিষ্কারকে কেন্দ্র করে এ পর্যন্ত প্রতিবছর  ২৪ মার্চে বিশ্ব যক্ষ্মা দিবস পালিত হয় । আসুন আমরা প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও বিশ্ব যক্ষ্মা দিবস পালন করি এবং মুখে বলি যক্ষ্মা হলে রক্ষা নাই এই কথার ভিত্তি নাই , নিয়মিত ঔষধ খেলে যক্ষ্মা রোগের রক্ষা মিলে। ২০১৮ সালের প্রতিপাদ্য বিষয় ,‍‍‌‌‌‍‌‌"নেতৃত্ব  চাই যক্ষ্মা নির্মূলে ইতিহাস গড়ি সবাই মিলে"।

বার্তা প্রেরক‌‌
মোঃ নূরুল ইস(নূরু)
শিক্ষানুরাগী ও যক্ষ্মার কর্মী
ডাকাতিয়, ভালুকা, ময়মনসিংহ ।





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

স্বাস্থ্য বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৩৮ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই