তারিখ : ২৪ মে ২০১৯, শুক্রবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

মওলানা ভাসানীকে রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি প্রদান করুন-ন্যাপ

মওলানা ভাসানীকে রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি প্রদান করুন-ন্যাপ
[ভালুকা ডট কম : ২২ জানুয়ারী]
রাষ্ট্রের সকল অর্জনের কৃতিত্ব কোন একব্যাক্তি বা একদলের নয়। বৃহত রাজনৈতিক দলের সুবিধাভোগি তথাকথিত বুদ্ধিজীবীরা নিজেদের স্বার্থ হাসিলের জন্য ক্ষমতাসীনদের সকল কৃতত্ব দেয়া অপচেষ্টায় লিপ্ত হয়। পলে বার বার ইতিহাস বিকৃতি হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া।

তিনি বলেন, ম্বাধীন বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা, মুক্তিযুদ্ধকালীন প্রবাসী সরকারের উপদেষ্টা কমিটির চেয়ারম্যান মজলুম জননেতা ভাসানীকে বাদ দিয়ে দেশের ইতিহাস নির্মিত হবে না। মওলানা ভাসানী শুধু স্বাধীনতার স্বপ্নদ্রষ্টা নন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজবুর রহমানের রাজনৈতিক গুরুও বটে। তিনি আওয়ামী লীগেরর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি। ১৯৭১ সালের ৭ মার্চে বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষনের পর ৯ মার্চ তার বক্তব্যকে সমর্থন করেছিলেন মওলানা ভাসানী। ৭০ এর নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিজয়কে সুনিশ্চিত করতে ভোট বর্জন করেছিলেন তিনি।

মঙ্গলবার নয়াপল্টনস্থ যাদু মিয়া মিলনায়তনে “মজলুম জননেতা মওলানা ভাসানীর ৪৭তম স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের দিবস উপলক্ষে” বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ ঢাকা মহানগর আয়োজিত শ্রদ্ধা নিবেদন ও আলোচনা প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

গোলাম মোস্তফা ভুইয়া মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে মজলুম জননেতা মওলানা ভাসানীকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদা প্রদানের আহ্বান জানিয়ে বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনার ভিত্তিতে জাতীয় ঐক্যের স্বার্থে মওলানা ভাসানীকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদা প্রদান করে নতুন ইতিহাস সৃষ্টি করবেন বলে আমরা বিশ্বাস করি।

তিনি মজলুম জননেতার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে তাঁর অমর স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন, মওলানা ভাসানীকে বাদ দিয়ে বাংলাদেশের কোন ইতিহাস নির্মান করা সম্ভব নয়। ৪৭, ৪৯, ৫২, ৫৪, ৫৭ কাগমারী সম্মেলনে ‘আসসালামু আলাইকুম’ উচ্চারনের মধ্য দিয়ে প্রথম স্বাধীনতার মন্ত্র উচ্চারন, ৬৯'র গণঅভ্যুত্থান, ৭০'র নির্বাচন, ৭১ মুক্তিযুদ্ধ, ৭৬ সালে ফারাক্কা লংমার্চের মাধ্যমে বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদের বীজ বপন কোথায় নেই মওলানা ভাসানী ? তাকে বাদ দিয়ে যারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা আর জাতীয়তাবাদের কথা বলে মুখে ফেনা তোলেন তারা মূলতঃ আত্ম প্রবঞ্চক। ইতিহাসের গতিধরায় মওলানা ভাসানী টিকে থাকবেন।

ন্যাপ ঢাকা মহানগর সভাপতি মো. শহীদুননবী ডাবলু'র সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশগ্রহন করেন এনডিপি মহাসচিব মোঃ মঞ্জুর হোসেন ঈসা, লেবার পার্টি মহাসচিব আবদুল্লাহ আল মামুন, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি অতিরিক্ত মহাসচিব এডভোকেট জাফর আহমেদ জয়, ন্যাপ ভাইস চেয়ারম্যান কাজী ফারুক হোসেন, স্বপন কুমার সাহা, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ কামাল ভুইয়া, নগর সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ মো. নজরুল ইসলাম প্রমুখ।

স্বাধীন বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা, মুক্তিযুদ্ধকালে প্রবাসী সরকারের উপদেষ্টা কমিটির চেয়ারম্যান মজলুম জননেতা মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ ন্যাপ‘র উদ্দ্যোগে যাদু মিয়া মিলনায়তনে মজলুম জননেতার অস্থায়ী প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ, ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এনডিপি, বাংলাদেশ লেবার পার্টি, বাংলাদেশ ন্যাপ ঢাকা মহানগর, বাংলাদেশ যুব ন্যাপ, জাতীয় ছাত্র আন্দোলন-সহ বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন। #





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

রাজনীতি বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৭৬ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই