তারিখ : ২৩ জুলাই ২০১৯, মঙ্গলবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

ভালুকায় মিলের বর্জ্য পানিতে রাস্তা ঘাট প্লাবিত

মিলের জলে নৌকা চলে
ভালুকায় এক্সপিরিয়েন্স মিলের দূষিত বর্জ্য পানির প্লাবনে ফসলের জমি,রাস্তাঘাট তল
[ভালুকা ডট কম : ২৫ মার্চ]
ভালুকা উপজেলার ভরাডোবা গ্রামের এক্সপিরিয়েন্স মিলের বর্জ্য মিশ্রিত দূষিত পানি প্লাবন হয়ে স্থানীয় কৃষকদের জমির ফসল নষ্ট সহ রাস্তাঘাট বাড়ীঘরে উঠে ব্যাপক জলাবদ্ধতার সৃষ্টি করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এর আগে এলাকার কৃষকরা বিভিন্ন সময়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, জেলা প্রশাসক, উপ-পরিচালক পরিবেশ অধিদপ্তর ময়মনসিংহ ও ডিজি পরিবেশ অধিদপ্তর ঢাকা বরাবরে লিখিত অভিযোগ দিয়েও প্রতিকার পাননি বলে জানান।

২৩ মার্চ শনিবার সরজমিন ভরাডোবা গ্রামে গেলে অনেকেই অভিযোগ করেন ভরাডোবা পাকিস্তানী নামে পরিচিত এক্সপিরিয়েন্স মিলের বিষাক্ত বর্জ পানি দিনরাত মিল সংলগ্ন আশ পাশের কাকাচড়া,খুরুলিয়া, সাধুয়া বিলে নামার কারনে ক্ষেতখলা,রাস্তাঘাট তলিয়ে চৈত্র মাসে অকাল বন্যা দেখা দিয়েছে। কাকাচড়া বিল লাগুয়া মোফজ্জল হোসেন তরফদার ও আফাজ মন্ডলের বোরো ধান পানির নীচে তলিয়ে গেছে। পানিতে রাস্তা তলিয়ে যাওয়ায় মিলঘেঁষা সাধুয়া ও কাকাচড়া বিলের মাঝখানের ভিটায় বসবাস রত কয়েকটি বাড়ীর লোকজন চলাচলের জন্য নৌকা কিনে এনে পারাপার হচ্ছেন।

ওই ভিটার বাসিন্দা ছোবান সেখের ছেলে আবুল সেখ জানান চৈত্রমাসে তাদের বাড়ী সংলগ্ন বিলের পানি শুকিয়ে বোরো ধানের আবাদ করতেন, বিলের মাঝখানের পানি শুকিয়ে জমি ফেটে চৌচির হয়ে থাকতো, অথচ গত কয়েক বছর ধরে পাকিস্তানী মালিকের নামে পরিচিত এক্সপিরিয়েন্স ডাইং মিলের বর্জমিশ্রিত দুর্গন্ধ যুক্ত পানি সব সময় নামায় বিল ভরে থাকে। গত এক দেড়মাস যাবৎ সমস্ত পানি এসব বিলে ছাড়ায় তাদের বাড়ীর রাস্তাঘাট তলিয়ে টানি জমিতে পানি উঠে ক্ষেতখলার ফসল নষ্ট করে ফেলছে। দুর্গন্ধযুক্ত দূষিত পানিতে নামলে শরীরে চুলকানো সহ ফুসকার মতো পরে।বড় রাস্তায় যাওয়ার একমাত্র পথটি বুক পানির নীচে তলিয়ে যাওয়ায় বাড়ী হতে ছেলে মেয়েদের স্কুলে যাওয়া, হাট বাজারে, কাজে কর্মে যাওয়া বন্ধ হয়ে দুর্বিসহ জীবন শুরু হয়। এ অবস্থা দেখে ভরাডোবা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহ আলম তরফদার তাদেরকে পারাপারের জন্য একটি নৌকা কিনে দিয়েছেন যেটি এপার ওপার টানার জন্য ৮০০ টাকার রশি কিনে এনেছেন।

তিনি জানান হটাৎ করে ঘরের পাশে পানি উঠায় যেকোন মুহূর্তে ছোট শিশুরা পানিতে পরার ভয়ে তারা আতংকগ্রস্ত দিন যাপন করছেন। তারা দুর্গন্ধের কারনে খাবার ক্ষেতে পারেননা, ঘরের জানালা কপাট খোলা থাকলে দুর্গন্ধে অস্বস্থিবোধ হয়।

পল্লী চিকিৎসক এমদাদ আলী তরফদার জানান গত ৮/১০ বছর যাবৎ পাকিস্তানী মিলের দূষিত পানির জলাবদ্ধতার কারনে তারা খুরুলিয়া ও সাধুয়া বিলে কোন বোরো ধানের আবাদ করতে পারেননা। এছারা এসব খাল বিলে সারা বছর প্রকৃতির দেয়া বিভিন্ন প্রজাতির মাছ পাওয়া যেতো যা তাদের পরিবারের খাদ্যের পুষ্টি যোগাতেন, বিষাক্ত কালো পানি তাও কেড়ে নিয়েছে। পানি দূষিত হওয়ায় বিলে হাঁসের খামার করা বন্ধ হয়ে গেছে। বছরের পর বছর দুর্গন্ধযুক্ত বিষাক্ত পানি জমে থাকায় বিভিন্ন ফসলের ক্ষতি সাধন সহ বিভিন্ন রোগ ব্যাধিতে এলাকাবাসী আক্রান্ত হচ্ছে।

ভরাডোবা হতে ভালুকা থানারমোড় ক্ষীরু নদী পর্যন্ত প্রায় ৫ কিলোমিটার লম্বা একটি পাইপ লাইন মিল কর্র্তৃপক্ষ অপরিকল্পিত ভাবে স্থাপন করলেও তাতে ঠিকমত বর্জ না নামার কারনে সেটিও বন্ধ বলে কৃষকদের অভিযোগ।

এলাকার লোকজন জানান মিলের বিষাক্ত কালো বর্জপানি চালায় উঠায় আম,কাঠাল, তাল গাছ সহ বিভিন্ন গাছ মরতে শুরু করেছে। ইউছুফ তরফদার জানান সবজি ক্ষেত নষ্ট হয়ে এখন কয়েকটি মূল্যবান তাল গাছ মরার উপক্রম হচ্ছে, ওই পানিতে গবাদি পশু হাঁস মুরগী সমানে মারা যাচ্ছে। গত কয়েকদিন যাবৎ একটি কুকুর মরে পানিতে ভেসে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। তারা দুর্গন্ধে বাড়ীঘরে থাকতে পারছেননা। অপরদিকে পানি বাহিত নানা রোগব্যাধিতে এলাকার শিশু সহ লোকজন আক্রান্ত হচ্ছে। এলাকার মানুষ অনেক প্রতিবাদ আন্দোলন করেও কোন প্রতিকার না পেয়ে এখন আস্থাহীন হয়ে পরেছে।এলাকাবাসীর অভিযোগ বাংলাদেশের মাটিতে পাকিস্তানী ওই মিল মালিকের এত ক্ষমতার উৎস কোথায় বিষয়টির প্রতি নজরদিতে সরকারের কাছে হস্তক্ষেপ দাবী করছেন।

উল্লেখ্য গত ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ মঙ্গলবার সকাল ১১ টায় ভালুকা উপজেলার ভরাডোবা গ্রামের এক্সপিরিয়েন্স মিলের বর্জ মিশ্রিত দূষিত পানি বন্ধের দাবীতে ভরাডোবা ও বিরুনীয়া ইউনিয়নের পাঁচ গ্রামের কয়েক হাজার নারী পুরুষ মানব বন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে। পরে কৃষকরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। কিন্ত এতদিনেও কোন ফলাফল আসেনি। এ ব্যাপারে জানতে ২৪ মার্চ সকাল ১০ টা ৬ মিনিটে ভরাডোবা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান  শাহ আলম তরফদারের ব্যাক্তিগত মোবাইলে ফোন দিলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

ভালুকা বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৮৪ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই