তারিখ : ২৫ আগস্ট ২০১৯, রবিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

নান্দাইলে ইউপি চেয়ারম্যানের উপর শ্রমিকলীগ নেতার হামলা

নান্দাইলে ইউপি চেয়ারম্যানের উপর শ্রমিকলীগ নেতার হামলা,প্রতিবাদে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান  
[ভালুকা ডট কম : ১৮ এপ্রিল]
ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার ১১নং খারুয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগ নেতা মো. কামরুল হাসনাত ভূইয়া মিন্টুকে পৌর শ্রমিকলীগের আহ্বায়ক মো. শহিদের নেতৃত্বে বুধবার রাতে উপজেলা সদরে প্রধান রাস্তায় গাড়ী থেকে নামিয়ে মারধর সহ লাঞ্চিত করা হয়। উক্ত ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার নান্দাইল মডেল থানায় শ্রমিকলীগ নেতা শহিদ, তার ভাই সোহেল, বোনজামাই আলআমিন সহ অজ্ঞাত ৩/৪জনের নামে একটি নিয়মিত মামলা দায়ের করেছে।

মামলাসূত্রে জানাগেছে, শ্রমিকলীগ নেতা শহিদের স্ত্রী রুমা আক্তার কলি সদ্য সমাপ্ত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করে পরাজিত হন। খারুয়া ইউনিয়নে ভোট কম পাওয়ায় শ্রমিকলীগ নেতা ইউপি চেয়ারম্যানকে দায়ী করে তার নিকট নির্বাচনের খরচবাবদ বিশ লাখ টাকা দাবী করে। এ নিয়ে তাকে ইতিপূর্বে হুমকীও প্রদান করা হয়েছে। একই দলের লোক হওয়ায় চেয়ারম্যান বিষয়টি আমলে নেয়নি। বুধবার রাতে ইউপি চেয়ারম্যান উপজেলা সদর থেকে বাড়ীতে যাওয়ার পথে তার প্রাইভেটকার থামিয়ে তাকে গাড়ী থেকে নামিয়ে এক লাখ ১০ হাজার টাকা নগদ, একটি আইফোন যার মূল্য ৮৫ হাজার টাকা এবং ১৪ লাখ ৫০ হাজার টাকা দামের এলিয়ন প্রাইভেটকার ঢাকা-মেট্ট্রো-গ ২৫-৬১৬২ গাড়ীটি দাবীকৃত চাদাঁ হিসাবে জোরপূর্বক নিয়া যায়।

এদিকে ইউপি চেয়ারম্যানের উপর হামলার ঘটনা ও গাড়ী সহ মালামাল ছিনতাইয়ের প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার বেলা ১টায় নান্দাইল উপজেলা সদরে প্রায় সহস্রাধিক জনতা হাইওয়ে সড়কে মানববন্ধন, বিক্ষোভ মিছিল, সড়ক অবরোধ করে রাখে। পরে নান্দাইল মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. কামরুল ইসলাম মিঞার হস্তক্ষেপে অবরোধ তুলে নিয়ে জনতা উপজেলা পরিষদ কিছু সময় বিচারের দাবীতে ঘেরাও করে বিভিন্ন স্লোগান দেয়। খারুয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল বারিক ও সাধারন সম্পাদক জালাল উদ্দিন মল্লিক সহ ইউনিয়ন পরিষদের সদস্যগণ উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে গিয়ে পৃথক পৃথক দুটি স্মারকলিপি প্রদান করেন।

নান্দাইল মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. কামরুল ইসলাম মিঞা জানান, এজাহারভূক্ত আসামীদের গ্রেফতার সহ ছিনিয়ে নেওয়া টাকা ও মোবাইল উদ্বারের চেষ্টা চলছে  এবং গাড়ীটি আসামীদের বাড়ি কাকচর এলাকা থেকে উদ্বার করে থানায় রাখা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোসাদ্দেক মেহেদী ইমাম স্মারকলিপি গ্রহন করে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে জানান।

নান্দাইল উপজেলা চেয়ারম্যান সমিতির নেতৃবৃন্দ উক্ত ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে অবিলম্বে আসামীদের গ্রেফতার সহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি করেন। অন্যথায় চেয়ারম্যান সমিতি কঠোর কর্মসূচী পালন করতে বাধ্য হবে।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

ভালুকার বাইরে বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৮৮ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই