তারিখ : ১৯ আগস্ট ২০১৯, সোমবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

পাস্তুরিত দুধ পরীক্ষার নির্দেশ হাইকোর্টের

পাস্তুরিত দুধ পরীক্ষার নির্দেশ হাইকোর্টের
[ভালুকা ডট কম : ২১ মে]
রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশের বাজারে পাস্তুরিত (তরল) দুধ পরীক্ষার নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। বিএসটিআই, নিরাপদ খাদ্য অধিদফতরসহ সংশ্লিষ্টদের এ পরীক্ষা করতে বলা হয়েছে। তাছাড়া, ঢাকাসহ দেশের ফলের বাজার ও আড়তে আমসহ কোনো ফল পাকাতে ও সংরক্ষণে যাতে কেউ কোনো ধরনের কেমিক্যাল ব্যবহার করতে না পারে তা তদারকির জন্য মনিটরিং টিম গঠনের নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট।

আজ (মঙ্গলবার) দুধ ও দইয়ে অনুজীব, কীটনাশক ও সীসার উপস্থিতি বিষয়ে ন্যাশনাল ফুড সেফটি ল্যাবরেটরির প্রধান প্রফেসর ডা. শাহনীলা ফেরদৌসী তার গবেষণা রিপোর্ট হলফনমা আকারে আদালতে জমা দেন। এর আগে, দুধ-দইয়ে অ্যান্টিবায়োটিক অনুজীব, কীটনাশক, সিসারউপস্থিতি নিয়ে গত ১১ ফেব্রুয়ারি কয়েকটি জাতীয় দৈনিকে রিপোর্ট প্রকাশের পর হাইকোর্ট স্বপ্রণোদিত হয়ে রুল জারি করেন। রুলে তিন মাসের মধ্যে কমিটি গঠন করে ব্যবস্থা গ্রহণের আদেশ দেয়া হয়। এ সময় দুধ, দই ও পশুখাদ্যে ভেজাল মেশানোর পেছনে কারা জড়িত তাও জানতে চেয়েছে হাইকোর্ট।

এদিকে, ঢাকাসহ দেশের ফলের বাজার ও আড়তে আমসহ কোনো ফল পাকাতে ও সংরক্ষণে যাতে কেউ কোনো ধরনের কেমিক্যাল ব্যবহার করতে না পারে তা তদারকির জন্য মনিটরিং টিম গঠনের নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। পুলিশ মহাপরিদর্শক, র‌্যাব মহাপরিচালক, বিএসটিআই চেয়ারম্যান ও সংশ্লিষ্ট পরিচালককে সাত দিনের মধ্যে এই মনিটরিং দল গঠন করতে বলা হয়েছে। এ বিষয়ে আগামী ১৮ জুনের মধ্যে অগ্রগতি প্রতিবেদন দাখিল করতে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। মানবাধিকার ও পরিবেশবাদী সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) দায়ের করা এক আবেদনের প্রেক্ষিতে হাইকোর্টের একটি  বেঞ্চ গতকাল সোমবার এ আদেশ দেয়।

নিরাপদ খাদ্যের ব্যাপারে হাইকোর্টের সাম্প্রতিক ভূমিকাকে স্বাগত জানিয়ে পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলনের (পবা) চেয়ারম্যান আবু নাসের খান বলেন, পরিবেশবাদীদের দীর্ঘদিনের আন্দোলন, গণমাধ্যমের প্রচার এবং মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে অপরাধীদের শাস্তিদানের ঘটনায় জনসচতনতা বেড়েছে। তবে সে অনুযায়ী সংশ্লিষ্ট সরকারি প্রতিষ্ঠান তেমন একটা সক্রিয় হচ্ছিল না। এখন আদালতের নির্দেশ পর তারা তাদের দায়িত্ব যথাযথ পালন করবে এটাই আশা করেন ভোক্তা তথা দেশের জনগণ।

এ প্রসঙ্গে সরকারি প্রতিষ্ঠানসমূহকে রজনৈতিক চাপ মোকাবেলা করে অপরাধীদের জন্য আইনানুগ সাজার ব্যবস্থা করার দাবি জানান আবু নাসের খান। একইসাথে তিনি আশা করেন, খাদ্য বা পানীয় প্রস্তুতকারী কারখানাগুলোও জনস্বাস্থ্য রক্ষা এবং  তাদের বাজার ধরে রাখার স্বার্থেই ভেজাল মুক্ত ও ক্ষতিকর রাসায়নিক মুক্ত নিরাপদ খাদ্য উৎপাদন করবে।

ওদিকে, খাদ্যে ভেজালকারী অসাধু ব্যবসায়ীদের আইনের আওতায় এনে ফাঁসি দেওয়ার দাবি জানিয়েছে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দল। সোমবার (২০ মে) সন্ধ্যায় সংসদ ভবনের মেম্বারস ক্লাব মাঠে আয়োজিত এক ইফতার মাহফিল ও আলোচনা সভায় এ দাবি করেন জোটের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম।

তিনি  বলেন,আমরা ১৪ দলের পক্ষ থেকে খাদ্যে ভেজালকারীদের কঠোর শাস্তি দাবি করে আসছি। প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন এই ভেজালকারীদের ধরে প্রয়োজনে অর্থদণ্ড দিতে। এই ভেজালকারীরা মানুষরূপী নরপিশাচ, এদের শুধু অর্থদণ্ড নয়, মৃত্যুদণ্ড দিতে হবে। ১৪ দলের পক্ষ থেকে আমরা এ দাবি করছি। এই ভেজালকারীদের কোনোভাবে ক্ষমা করা যায় না।

তবে, সরকারের সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম খাদ্যে ভেজালের জন্য-জামায়াত বিএনপি দায়ী করে বলেছেন, মানুষ পুড়িয়ে রাজনীতি করে এমন একটি রাজনৈতিক দল আছে, তাদের দ্বারাই সম্ভব এই ধরনের নরঘাতক ব্যবসা, খাদ্যে ভেজাল ব্যবসা করা, যার মাধ্যমে তাদের সন্তান মারা যেতে পারে, ভাই মারা যেতে পারে, আত্মীয়স্বজন মারা যেতে পারে।’#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অন্যান্য বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৮৬ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই