তারিখ : ১৯ আগস্ট ২০১৯, সোমবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

ঈদে ঘরমুখো মানুষের ভোগান্তি লাঘবে সেতুমন্ত্রীর নির্দেশ

ঈদে ঘরমুখো মানুষের ভোগান্তি লাঘবে সেতুমন্ত্রীর নির্দেশ
[ভালুকা ডট কম : ২৩ মে]
আসন্ন ঈদে ঘরমুখো সাধারণ মানুষ যেন ভোগান্তির শিকার না হয় সে বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। আজ (বৃহস্পতিবার) সকালে মহাখালীর বিআরটিএ ভবনে এক সমন্বয় সভায় তিনি এ নির্দেশ দেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, দুর্ঘটনা ও যানজটের কারণগুলো রাতারাতি সমাধান করা সম্ভব নয়। এক্ষেত্রে সমন্বিতভাবে সব পক্ষের দায়িত্বশীল আচরণ জরুরি। এবারের ঈদে মানুষ আগের চেয়ে নির্বিঘ্নে যাতায়াত করতে পারবে বলেও আশা প্রকাশ করে সেতুমন্ত্রী বলেন, ঈদে ঢাকা-চট্টগ্রাম, ঢাকা-টাঙ্গাইল উত্তরবঙ্গগামী মানুষের যাত্রা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হবে। মহাসড়কের উন্নয়ন করার পরও যদি পরিবহন যথাযথ শৃঙ্খলা মেনে না চলে, তাহলে কিন্তু রাস্তা, ব্রিজ, ফ্লাইওভার, আন্ডারপাস এসব থেকে তেমন কোনো সুফল পাওয়া যাবে না। ঈদের সময় মহাসড়কে যাতে ফিটনেসবিহীন যানবাহন চলতে না পারে সে ব্যাপারে হাইওয়ে পুলিশকে নির্দেশ দেন সেতুমন্ত্রী।

এদিকে, ঈদযাত্রায় ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রির দ্বিতীয় দিনে আজকেও স্টেশনে ভিড় করেছেন টিকিট প্রত্যাশীরা। আজ সকাল ৯টা থেকে শুরু হয় পয়লা জুনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি। তবে অনলাইনে টিকেট কিনতে গিয়ে সমস্যায় পড়ে অনেকেই ছুটে এসেছেন কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে। প্রতিদিন অনলাইনে প্রায় ১৩ হাজার ৩৫০টি টিকিট পাওয়ার ঘোষণা থাকলে বাস্তবে তা পাওয়া না যাওয়ায় দুর্নীতির গন্ধ পেয়ে কমলাপুর ষ্টেশনে ছুটে এসেছেন দুদকের কর্মকর্তারাও।যাত্রীরা অভিযোগ করে বলছেন, রেলসেবা অ্যাপস ব্যবহার করে অগ্রিম একটি টিকিটও কেনা যাচ্ছে না।

অন্যদিকে, চট্টগ্রামেও একই সময়ে শুরু হয়েছে রেলের অগ্রিম টিকিট বিক্রি কার্যক্রম। চারটি রুটে প্রতিদিন ৭ হাজার ৪১টি টিকিট দেয়া হবে যাত্রীদের। পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে নৌ-পথে যাত্রীসাধারণের নিরাপদ ও হয়রানিমুক্ত যাতায়াত নিশ্চিত করতে ওভারলোড কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ, অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের নৈরাজ্য প্রতিরোধ, লঞ্চ ও খেয়াঘাটে ইজারাদারের দৌরাত্ম বন্ধ করাসহ ১৮ দফা প্রস্তাবনা দিয়েছে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি।

গণমাধ্যম পাঠানো এক বিবৃতিতে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী বলেন, অতিরিক্ত যাত্রী বহনের পাশাপাশি সরকার নির্ধারিত ভাড়া আদায়ের নামে প্রতিবছর ঈদে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের নৈরাজ্যের শিকার হচ্ছে নৌ-পথের যাত্রীরা। তিনি বলেন, দুর্যোগপূর্ণ কালবৈশাখীর এই সময়ে কঠোর নিয়ন্ত্রণের মধ্যে নৌ-পথে ঈদযাত্রা নিশ্চিত করা না গেলে দুর্ঘটনার ঝুঁকি রয়েছে।

এ সময় স্পেশাল সার্ভিসের নামে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের নৈরাজ্য বন্ধ করা, প্রতিটি লঞ্চে লাইফ জ্যাকেটসহ যাত্রী অনুপাতে অন্যান্য নিরাপত্তা সরঞ্জাম নিশ্চিত করা এবং প্রতিটি লঞ্চে লাইসেন্সধারী প্রশিক্ষিত ও দক্ষ চালক, সারেং রাখার বিষয় নিশ্চিত করার দাবি জানিয়েছে যাত্রী কল্যাণ সমিতি।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অন্যান্য বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৮৬ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই