তারিখ : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

১৫ আগস্টে জিয়া,২১ আগস্টে বিএনপি জড়িত-কাদের

১৫ আগস্টে জিয়া,২১ আগস্টে বিএনপি জড়িত-কাদের
[ভালুকা ডট কম : ২২ আগস্ট]
১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের ঘটনায় জিয়াউর রহমান এবং ২০০৪ সালের ২১ আগস্টের ঘটনার জন্য বিএনপিকে অভিযুক্ত করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। আজ (বৃহস্পতিবার) সন্ধ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র (টিএসসি) মিলনায়তনে ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলার স্মরণে ছাত্রলীগ আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এ অভিযোগ করেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন,মুক্তিযুদ্ধের পরাজয়ের প্রতিশোধ নিতে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করা হয়েছিল। মুক্তিযুদ্ধের পরাজয়ের প্রতিশোধ নিতে বঙ্গবন্ধু কন্যাকে হত্যা করার চেষ্টা করা হয়েছিল বারবার এবং ২১ আগস্ট প্রাইম টার্গেট ছিলেন শেখ হাসিনা।

বিএনপি নেতাকর্মীদের উদ্দেশে কাদের বলেন,২১ আগস্টের ঘটনায় সরাসরি জড়িত আপনারা, পরিকল্পনাকারী আপনারা, মাস্টার মাইন্ড আপনারা। হত্যা হত্যাকে ডেকে আনে। বঙ্গবন্ধু হত্যার খুনীদের যদি বিচার হতো তাহলে আরেকটা খুনি চক্র ‘৮১ সালে জিয়াউর রহমানকে হত্যা করার দুঃসাহস পেত বলে আমার বিশ্বাস হয় না।

সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন,ইতিহাসের এ সত্যকে কীভাবে অস্বীকার করবেন? আজকের এ প্রসঙ্গকে আমি বিচ্ছিন্নভাবে দেখি না। এ প্রসঙ্গকে আমি দেখি ১৫ আগস্টের বিশ্বাসঘাতকতার ধারাবাহিকতা হিসেবে। ১৫ আগস্ট-২১ আগস্ট একই সূত্রে গাঁথা।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার উদ্দেশে তিনি বলেন,যেই বুলেট শেখ হাসিনা, শেখ রেহানাকে এতিম করেছে, একই বুলেট বেগম জিয়া আপনাকেও বিধবা করেছে। খুনকে খুন ডেকে আনে, হত্যা হত্যাকে ডেকে আনে। পরিণতি কী হয়েছে? আমরা জিয়াউর রহমানকে খুন করিনি। তার আপন মানুষরাই তাকে খুন করেছে। বঙ্গবন্ধুকে যেই পথে বিদায় দিয়েছিল বিশ্বাসঘাতকতা করে, সেই পথেই জিয়াউর রহমানকে বিদায় নিতে হয়েছে।

জিয়াউর রহমানকে ‘পলাশীর বিশ্বাসঘাতক’ উল্লেখ করে তিনি বলেন,আগস্ট মাস এলে আমাদের বেদনার অশ্রু ঝরে পড়ে। আগস্ট মাস এলে আমাদের হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হয়। সে এক বিশ্বাসঘাতকতা! লোটাস বিশ্বাসঘাতকতা করেছে জুলিয়াস সিজারের সঙ্গে, মীর জাফর, জগৎ শেঠ, ইয়ার লতিফ বিশ্বাসঘাতকতা করেছে নবাব সিরাজ উদ দৌলার সঙ্গে। দুনিয়ার ইতিহাস, বীরত্ব গাঁথার পাশাপাশি বিশ্বাসঘাতকতার আরেক নজির, পলাশীর সেই ইয়ার লতিফের মতো সেনাপতি জিয়াউর রহমান বিশ্বাসঘাতকতা করেছে খন্দকার মোশতাকের সহযোগীর মতো। কত বড় বিশ্বাসঘাতক! বঙ্গবন্ধুর সেই খুনিদের যেন বিচার না হয় সে জন্য সংবিধানে কুখ্যাত ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ পঞ্চম সংশোধনীতে অন্তর্ভুক্ত করেছে। অধ্যাদেশ জারি করেছে, তারপর পঞ্চম সংশোধনী করেছে খুনিদের যেন বিচার না হয়।

ছাত্রলীগ সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনের সভাপতিত্ব এবং সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীর সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক ও আব্দুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আ.ফ.ম. বাহাউদ্দিন নাছিম ও বি এম মোজাম্মেল হক।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অন্যান্য বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৮৯ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই