তারিখ : ১৫ নভেম্বর ২০১৯, শুক্রবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

সারাদেশে লাগামহীন দুর্নীতি,টেন্ডারবাজি চলছে-মওদুদ

সারাদেশে লাগামহীন দুর্নীতি,টেন্ডারবাজি চলছে-মওদুদ
[ভালুকা ডট কম : ১৫ অক্টোবর]
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ বলেছেন, 'আওয়ামী লীগ সরকারের শাখা-প্রশাখায় দুর্নীতি বিস্তার করছে। যেহেতু এই সরকার জনগণের ভোটের মাধ্যমে নির্বাচিত নয়। তাই জনগণের কাছে তাদের জবাবদিহিতাও নেই। ফলে সারাদেশে লাগামহীন দুর্নীতি চাঁদাবাজি এবং টেন্ডারবাজি চলছে।' আজ (মঙ্গলবার) দুপুর ১২টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবে ২০ দলীয় জোট আয়োজিত ‘বুয়েটছাত্র আবরার ফাহাদের’ স্মরণসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ছাত্রলীগ-যুবলীগের বিভিন্ন অপকর্মের কথা উল্লেখ করে মওদুদ আহমেদ বলেন, ছাত্রলীগের সভাপতি সেক্রেটারি ৮৬ কোটি টাকা চাঁদাবাজির খবর প্রকাশ হয়েছে। শামীম, খালিদ, সম্রাটরা ক্যাসিনো বাণিজ্যের মাধ্যমে কোটি কোটি টাকা লুটপাট করেছেন। শামীমের বাসা থেকে দেড়শ কোটি টাকার এফডিআর উদ্ধার করা হয়েছে, এটাতো কল্পনাও করা যায় না। আমাদের নেত্রী খালেদা জিয়াকে মাত্র দুই কোটি টাকার জন্য কারাদণ্ড দেয়া হয়েছেন। অথচ এর একটি টাকাও খরচ হয়নি।

আবরার ফাহাদকে স্মরণ করে মওদুদ বলেন, ফাহাদ জীবন দিয়ে প্রমাণ করে গেছে, যে ভিন্নমত প্রকাশ করা হলে এই সরকারের আমলে মৃত্যুও হতে পারে। শুধু বুয়েট নয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ সব বিশ্ববিদ্যালয়ের হলেই ছাত্রলীগের টর্চার সেল রয়েছে।

আওয়ামী লীগের সমালোচনা করে ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ বলেন, এই সরকার যত তাড়াতাড়ি বিদায় নেবে ততই আমাদের মঙ্গল। আমার দাবি করব অবিলম্বে এই সরকারের পদত্যাগ করা উচিত এবং একটি সুষ্ঠু অবাধ নির্বাচন দেওয়া উচিত। নির্বাচনের মাধ্যমে একটি প্রতিনিধিত্বশীল সরকার গঠন করা উচিত। যেখানে সবার মত প্রকাশের স্বাধীনতা থাকবে। দেশের মানুষ সুন্দরভাবে বসবাসের জন্য খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা প্রয়োজন। আইনের মাধ্যমে খালেদা জিয়ার মুক্তি সম্ভব নয়। এই সরকারের কাছ থেকে তিনি প্যারোলেও মুক্তি নেবেন না। সুতরাং একমাত্র আন্দোলন-সংগ্রামের মাধ্যমে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা সম্ভব।

স্মরন সভায় বিএনপি নেতা গয়েশ্বর চন্দ্র রায় প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দশ্য করে বলেন, আপনি ভারতকে পানি দিয়ে দিলেন। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আবরার যখন পানি খেতে চেয়েছিলেন, পানির তৃষ্ণায় বমি করেছিলেন তখন তো আপনি এক ফোঁটাও পানি দেননি।

স্মরণসভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নায়েবে আমির অধ্যাপক গোলাম পরওয়ার, জাতীয় পার্টির মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, বাংলার জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য মাওলানা আবদুল হালিম, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির চেয়ারম্যান ফরিদুজ্জামান রেজা, লেবার পার্টির চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান ইরান প্রমুখ।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অন্যান্য বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২২১ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই