তারিখ : ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২০, শনিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

ভালুকায় মসজিদ-মাদ্রাসার ভবন নির্মাণে বাধা

ভালুকায় মসজিদ-মাদ্রাসার ভবন নির্মাণে বাধা
[ভালুকা ডট কম : ১৯ জানুয়ারী]
ভালুকা উপজেলার মেদুয়ারী ইউনিয়নের পানিভান্ডা গ্রামে হাফেজ নুরুল ইসলামের ওয়াকফকৃত জমিতে মসজিদ মাদ্রাসার নির্মাণে বাধা দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

অভিযোগে জানা যায়, উপজেলার পানিভান্ডা গ্রামের হাসমত আলীর ছেলে হাফেজ নুরুল ইসলাম পৈত্রিক সূত্রে প্রাপ্ত লোহাবৈ মৌজার ১৬৫০৩ নং দাগের ২৪৭ শতাংশের কাতে ১৬ শতাংশ জমি জামিয়া হুসাইনিয়া কাশেমুল উলুম কওমী মাদ্রাসা ও বাইতুর রহমান তাকওয়াহ জামে মসজিদের নামে ওয়াকফ করে দেন। গত ২০১৯ সালের ১৪ জানুয়ারী স্থানীয় সাংসদ আলহাজ্ব কাজিম উদ্দিন আহমেদ ধনু ওই মসজিদ-মাদ্রাসার ভিত্তি প্রস্থর স্থাপন করেন। সম্প্রতি ওই মাদ্রাসার ভবন নির্মাণ করতে গেলে একই এলাকার তাইজুদ্দিন, ফয়েজুদ্দিন, আক্কাছ আলী, সুফিয়া খাতুন, জহুরা খাতুন, রিপন মিয়া ও আপন মিয়া, মসজিদ-মাদ্রাসা ভবন নির্মাণে বাধা দেয়। পরে নুরুল ইসলামের ছেলে হাফেজ মাওলানা আনোয়ার হোসেন বাদী হয়ে ৭জনকে আসামী করে ময়মনসিংহ বিজ্ঞ জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত সিআর মোকদ্দমা নং ১০২৬/২০১৯ দায়ের করে। আদালতের নিষেধাজ্ঞা জারী থাকার পরও বিবাদীরা ভবন নির্মাণ করতে বাধা প্রদান করেন। বর্তমানে ওয়াকফ বাদীর পরিবার বিবাদীদের হুমকিতে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে। মসজিদ মাদ্রাসা নির্মাণে এলাকাবাসী প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

হাফেজ আনোয়ার হোসেন জানান, রবিবার সকালে বিবাদীরা নির্মানাধীন মসজিদ ও মাদ্রাসার কয়েকটি পিলার ভাংচুা করে নির্মাণ কাজে বাধা দিচ্ছে। অভিযোক্ত তাইজুদ্দিনের মোবাইল ফোনে ফোন দিয়ে সংযোগ না পাওয়ায় তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।ভালুকা মডেল থানার অফিসার ইনর্চাজ মোহাম্মদ মাইন উদ্দিন জানান, অভিযোগের ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

ভালুকা বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২৩১ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই