তারিখ : ৩০ মে ২০২০, শনিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

ভালুকায় করোনা রোধে তৎপর জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসন

ভালুকায় করোনা সংক্রমণ রোধে মাঠে তৎপর জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসন
[ভালুকা ডট কম : ২৯ মার্চ]
ভালুকায় করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে সারাদেশের ন্যায় সচেতনতা কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসন। করোনা প্রতিরোধে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে উপজেলা প্রশাসনের সাথে মাঠে রয়েছে পৌর প্রশাসন, উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ ও ভালুকা মডেল থানা পুলিশ। তবে এখন পর্যন্ত ভালুকায় করোনায় আক্রান্ত কোন রোগীর সন্ধান না পাওয়ায় অনেকটা স্বস্তি  প্রকাশ  করেছেন সংশ্লিষ্টরা।

উপজেলা প্রশাসন-
সরকার ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সকল প্রকার দোকানপাট, গণপরিবহণ বন্ধ রাখার নির্দেশ দিলে মানুষকে সচেতন করে তুলতে মাঠে তৎপর রয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুদ কামাল ও প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারিবৃন্দ। প্রশাসনের দায়িত্বশীলরা পৌর প্রশাসন, থানা পুলিশ ও স্বাস্থ্য বিভাগকে সাথে নিয়ে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে সকল প্রকার দোকানপাট, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও জনসমাগম বন্ধ নিয়মিত তদারকি চালিয়ে যাচ্ছেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নেতৃত্বে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে মাঠে তৎপর রয়েছেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর একটি টিম।

পৌর প্রশাসন-
পৌর এলাকার ভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে সচেতনতামূলক প্রচারণাসহ শহর পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে বিভিন্ন কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন পৌরসভার মেয়র ডাঃ মেজবাহ উদ্দিন কাইয়ুম ও কাউন্সিলরবৃন্দ।পৌর প্রশাসনের পাশাপাশি নানাভাবে কাজ করে যাচ্ছে স্থানীয় ফায়ার সার্ভিস সদস্যরা।

উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) রোমেন শর্মা ও থানা পুলিশ- ওসি মাইন উদ্দিনের নেতৃত্বে উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজার, পাড়া-মহল্লা ও ব্যস্ততম সড়কে পিকআপ ভ্যানসহ মোটরসাইকেলযোগে টহল অব্যাহত রেখেছে।

স্বাস্থ্য বিভাগ করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগীদের সেবা দিতে ইতোমধ্যে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আইসোলেশন ওয়ার্ড প্রস্তুত রেখেছেন দায়িত্বশীলরা। প্রাথমিক অবস্থায় সেখানে পাঁচটি বেড প্রস্তুত রাখা হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত আইসোলেট করার মতো কোন রোগীর সন্ধান না পাওয়ায় অনেকটা স্বস্তি  প্রকাশ  করেছেন স্বাস্থ্য প্রশাসন।

উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনের জন্য ভালুকা সরকারী কলেজে ২০টি বেড প্রস্তুত করা হয়েছে ও দিবারাত্রি একটি হটলাইন নম্বর (০১৪০৪৪০৯৬০৪) চালু করা হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুদ কামাল বলেন, আমরা রাস্তায় নেমেছি মানুষকে ঘরে নিরাপদ রাখার জন্য। মানুষ অহেতুক বাইরে থাকলে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ বেড়ে যাবার আশঙ্কা রয়েছে। তাই আমরা ক্লান্তহীনভাবে কাজ করে যাচ্ছি। মহামারি রূপ ধারণ করা করোনা ভাইরাস সংক্রমণ এড়ানোর একমাত্র উপায় জনসচেতনতা। তাই সবার প্রতি অনুরোধ- আপনারা নিজেরা সচেতন ও সতর্ক হোন এবং আপনাদের পরিবার, সমাজ ও দেশকে নিরাপদ রাখুন।

তিনি বলেন,বিদেশ ফেরত ১৪০ জনকে হোমকোয়ারেন্টাইনে রাখলেও এর মধ্যে ১২৬জন মেয়াদ শেষ করে সুস্থ আছেন।বাকী ১৪জন হোমকোয়ারেন্টাইনে রয়েছে।  উপজেলায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত কোন রোগী নেই।১১টি ইউনিয়নে ১০৮ টি ওয়ার্ডে স্বেচ্ছাসেবক কমিটি করা হয়েছে ।

উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ বলেন করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে ভালুকা উপজেলার সাপ্তাহিক হাটবাজার ও জনসাধারনের সমাগম নিষিদ্ধ করা হয়েছে। জনসাধারনকে সচেতনতা বৃদ্দির লক্ষে উপজেলার ইউপি চেয়ারম্যান ও সদস্যবৃন্দ, বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠন সচেতনামূলক বিভিন্ন কার্যক্রম বাস্তবায়নে কাজ করে যাচ্ছে।

প্রতিদিনই স্থানীয় সংসদ সদস্য,ময়মনসিংহ-১১,ভালুকা, আলহাজ্ব কাজিম উদ্দিন আহম্মেদ ধনু নিজের ফেইসবুকে খুদে বার্তা দিয়ে সকলকে করোনা ভাইরাস সংক্রমনরোধে সতর্ক থাকার আহবান করছেন।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

ভালুকা বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২৬০ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই