তারিখ : ১১ আগস্ট ২০২০, মঙ্গলবার

সংবাদ শিরোনাম

ভালুকার করোনা আপডেট

২৯ জুলাই ২০২০, বুধবার
আক্রান্ত
২৪ ঘন্টা মোট
০ জন ২৮০ জন
সুস্থ
২৪ ঘন্টা মোট
০ জন ২১৯ জন
মৃত্যু
২৪ ঘন্টা মোট
০ জন ৩ জন

বিস্তারিত বিষয়

নওগাঁয় ধর্ষকের হুমকিতে চরম নিরাপত্তা হীনতায় ধর্ষিতা

নওগাঁয় ধর্ষকের হুমকিতে চরম নিরাপত্তা হীনতায় ধর্ষিতা
[ভালুকা ডট কম : ০৫ নভেম্বর]
নওগাঁর মান্দা উপজেলার চকচম্পক ছোট নিন্ম মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী কুমারী ** বয়স ১৫বছর। দেখতে অনেকটাই হাবাগোবার মতো। কথা খুবই কম বলে। তার শিক্ষক আমিনুল ইসলাম সকালে তার বাসায় প্রাইভেট পড়ানোর সময় জোরপূর্বক ধর্ষন করে।

এই ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করার ১৪দিন পার হলেও এখনো শিক্ষককে আটক না করায় সুষ্ঠু বিচার পাওয়া নিয়ে শঙ্কিত ভুক্তভুগির পরিবার। এছাড়াও প্রভাবশালী দাদন ব্যবসায়ী শিক্ষক ঘটনার পর থেকে পলাতক থাকলেও তার লোকজনের দেওয়া বিভিন্ন হুমকি-ধামকীতে মেয়েটি বিদ্যালয়ে যেতে পারছে না। তাই বর্তমানে গরীব এই পরিবারটি মেয়েকে নিয়ে চরম নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছে।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে,  জেলার মান্দা উপজেলার চকচম্পক হিন্দুপাড়া গ্রামের পলাশ চন্দ্রের মেয়ে কুমারী **। মা অন্যের বাড়িতে কাজ করে আর বাবা বগুড়ায় একটি ওষুধের দোকানে চাকরী করেন। অনেক কষ্টে দিন চলে এই পরিবারের। ছোটবেলা থেকেই ** সবার সঙ্গে কথা কম বলে। অনেকটাই সে শারীরিক ভাবে একটু দুর্বল বলে মনে হয়। ** বাড়ির পাশে বিদ্যালয়ে পড়ালেখা করে। সেই বিদ্যালয়ের গণিত ও বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক আমিনুল ইসলামের কাছে তার বাসায় প্রাইভেট পড়তো। গত ১৮-১০১৯ইং তারিখে বাড়ির পাশে শিক্ষকের বাড়িতে সকালে প্রাইভেট পড়তে গেলে শিক্ষক কৌশলে পরিত্যক্ত ৩তলায় নিয়ে গিয়ে তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। বিষয়টি পরদিন ** তার পরিবারকে জানালে বিষয়টি সবাই জানতে পারে। এদিকে ঘটনার পরদিন থেকে শিক্ষক আমিনুল ইসলাম পলাতক রয়েছেন। অনেক ঘটনার পর থানা পুলিশ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা গ্রহণ করে গত ২১-১০-১৯ তারিখে (মামলা নং ৩৭২৭(৩)/১, তাং ২২-১০-১৯)।

এদিকে মামলা করার পর থেকে প্রভাবশালী দাদন ব্যবসায়ী শিক্ষক আমিনুল ইসলামের লোকজনের বিভিন্ন ভয়-ভীতি ও হুমকি-ধামকীতে চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছে প্রিয়া রাণীসহ তার গরীব বাবা-মা। তাদের ভয়-ভীতির কারণে প্রিয়া রাণী বিদ্যালয়ে যেতে পারছে না। তাই বর্তমানে এই পরিবারটি সুষ্ঠু বিচার পাওয়া নিয়ে শঙ্কিত রয়েছেন।

স্থানীয় বাসিন্দা অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক বিষ্ণুপদ প্রামাণিক, সুবল কুমার সরকারসহ অনেকেই বলেন, শিক্ষক সমাজের মানুষ গড়ার কারিগর। আর সেই শিক্ষক যদি ধর্ষক হয় তাহলে সমাজের মানুষ কোথায় যাবে। এই শিক্ষক আগেও এধরনের অনেক ঘটনা ঘটিয়েছে। সেগুলো টাকা মাধ্যমে সমাধান করেছেন। বর্তমানে শিক্ষকের যে স্ত্রী বর্তমান রয়েছে সেও এই শিক্ষকের ছাত্রী ছিলো অনৈতিক কাজের অপরাধে তাকে বিয়ে করতে হয়েছে। শিক্ষক আমিনুল ইসলাম গরীব এই মেয়ের যে সর্বনাশ করেছে আমরা তার সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে দৃষ্টান্তর মূলক শাস্তি চাই যা সমাজে এক নজির হয়ে থাকবে।

ধর্ষিতা শিক্ষার্থী কুমারী ** জানায় প্রতিদিনের মতো ওই দিন সকালে আমি শিক্ষকের বাসায় পড়তে যাই। গিয়ে দেখি আমার অন্যান্য সহপাঠিরা আসেনি। শিক্ষক আমাকে বললেন ** ৩তলায় চলো। আজ তোমাদের ৩তলায় পড়াবো। এরপর শিক্ষক ৩তলায় নিয়ে গিয়ে ঘরের জানালা-দোরজা বন্ধ করে দেয়। আমার নিষেধ তিনি শোনেন না। জোর করে আমাকে ধর্ষন করে। এরপর তিনি আমাকে ভয় দেখান যে আমি যেন বিষয়টি কাউকে না বলি। তাহলে তিনি আমার পড়ালেখার খরচসহ যাবতীয় খরচ বহন করবেন।

ধর্ষিতার মা শ্রীমতি গীতা রাণী বলেন আমরা গরীব মানুষ। আমি মানুষের বাড়িতে কাজ করে সংসার চালাই। আমার মেয়ে অনেকটাই হাবাগোবা ধরণের। কথা কম বলে। সেই মেয়ের প্রতি শিক্ষক যে বর্বর নির্যাতন করেছে তার উপযুক্ত শাস্তি চাই। কিন্তু মামলা করার অনেক দিন পার হলেও পুলিশ এখনো ধর্ষককে আটক করতে পারেনি। এদিকে শিক্ষকের লোকজন প্রতিনিয়তই আমাদেরকে মামলা তুলে নেওয়ার হুমকি-ধামকীসহ নানা রকমের ভয়ভীতি দেখিয়ে আসছে। ভয়-ভীতির কারনে মেয়েকে স্কুলে পাঠাতে পারছি না। আমরা বর্তমানে চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছি।

চকচম্পক ছোট নিন্ম মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রহিদুল ইসলাম বলেন শিক্ষক আমিনুলের বিরুদ্ধে অভিযোগ পাওয়ার পরই বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্যরা তাকে বিদ্যালয় থেকে সাময়িক ভাবে বহিস্কার করেছে। আর আমিনুল ইসলাম যদি সত্যিই এধরনের কাজ করে থাকে তাহলে আমরা তার দৃষ্টান্তরমূলক শাস্তি চাই।

নওগাঁ পুলিশ সুপার প্রকৌশলী মো: আব্দুল মান্নান মিয়া বলেন আমরা ঘটনার তদন্ত অব্যাহত রেখেছি। আর দুপক্ষ থেকে দুরকম তথ্য পাওয়ায় মামলাটি সর্তকতার সঙ্গে তদন্ত করা হচ্ছে। ডাক্তারী পরীক্ষার সনদপত্র এখনো পাওয়া যায় নাই। ডাক্তারী পরীক্ষার ফলাফল পাওয়া গেলেই ঘটনার সত্যতা জানা যাবে। আর সত্যতা পাওয়া গেলে অবশ্যই মূল আসামীকে কঠোর শাস্তির আওতায় আনা হবে।#




সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অপরাধ জগত বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২৮৮ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই