তারিখ : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, শুক্রবার

সংবাদ শিরোনাম

ভালুকার করোনা আপডেট

২৯ জুলাই ২০২০, বুধবার
আক্রান্ত
২৪ ঘন্টা মোট
০ জন ২৮০ জন
সুস্থ
২৪ ঘন্টা মোট
০ জন ২১৯ জন
মৃত্যু
২৪ ঘন্টা মোট
০ জন ৩ জন

বিস্তারিত বিষয়

অসুস্থ ভাষা সৈনিক শহীদুল্লাহ কে আর্থিক সহযোগিতা

অসুস্থ ভাষা সৈনিক আব্দুল মালেক শহীদুল্লাহর পাশে কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগ
[ভালুকা ডট কম : ০৬ মার্চ]
চিকিৎসার অভাবে শষ্যাশায়ী বৃদ্ধ ভাষা সৈনিক ও মুক্তিযোদ্ধা সংগঠক সাবেক সাংসদ খন্দকার আব্দুল মালেক শহীদুল্লাহ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এমন খবর ছড়িয়ে পড়লে তার চিকিৎসার সহায়তার উদ্যোগ নেয় এবং পাশে দাঁড়ায় জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগ নেতারা। একজন ভাষা সৈনিক বিছানায় পড়ে কাতরাচ্ছেন এমন মর্মস্পর্শী খবরে নিজেদের দৈনন্দিন খরচের টাকা জমিয়ে, শুভাকাঙ্খীদের কাছ থেকে দান অনুদান সংগ্রহ করে ভাষা সৈনিকের চিকিৎসার সহায়তায় তার হাতে  তুলে দেন এক লাখ ছয় হাজার নয়শত চুরাশি টাকা।

কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক রাকিবুল হাসান রাকিবের উদ্যোগে ছাত্রলীগ কর্মীদের সংগ্রহকৃত অর্থ শুক্রবার বিকেলে ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন ভাষা সৈনিক খন্দকার মালেক শহীদুল্লাহর হাতে টাকা তুলে দেন কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এএইচএম মোস্তাফিজুর রহমান। এসময় উপস্থিত ছিলেন নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির যুগ্ন সাধারন সম্পাদক আরিফ ইকবাল আসিফ, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ন সাধারন সম্পাদক ও ঢাকসুর পরিবহন বিষয়ক সম্পাদক শামস-ই নোমান, এফ রহমান হলের ভাইস প্রেসিডেন্ট হোসাইন মোহাম্মদ আপেল, ছাত্রলীগ নেতা শাহীন হোসেন সাজ্জাদসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের  কর্মকর্তাবৃন্দ। এ সময় ভিসি ও ছাত্রলীগ নেতারা অসুস্থ ভাষা সৈনিকের চিকিৎসার খোঁজ খবর নেয়ার পাশাপাশি সবসময় পাশে থাকার কথা জানান।

বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক রাকিবুল হাছান রাকিব জানান, চিকিৎসার অভাবে মানবেতর জীবনযাপন করছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এমন খবর ছড়িয়ে পড়লে আমরা ব্যাক্তিগতভাবে তহবিল গঠন করে সহযোগিতার উদ্যোগ গ্রহন করি। বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা তাদের একবেলার দৈনন্দিন খরচের টাকা বাচিয়ে সহায়তা করার পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারীরা তাদের ইচ্ছেমত সহায়তার করে যার মাধ্যমে আমরা এক লাখ ছয় হাজার নয়শত চুরাশি টাকা উনার হাতে তুলে দেই। পাশাপাশি বর্ষীয়ান এ নেতার চিকিৎসার জন্য বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহবান জানাই।

বিশ্বদ্যিালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. এ্এইচ এম মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ভাষা সৈনিক মালেক ছিলেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সহযোগি। মুজিব বর্ষে এরকম একজন মহান মানুষের পাশে দাড়াতে পেরে আমি গর্বিত। আমি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের এ উদ্যোগকে আমি স্বাগত জানাই। ভাষা সৈনিক এ নেতাকে দেখতে আমি হাসপাতালে এসেছি। আগামীতে উনার চিকিৎসার ব্যাপারে আমরা আরও সহযোগিতা করব। মুজিববর্স পালনে ছাত্রলীগের এ আয়োজন সত্যিই অনুকরণীয় হয়ে থাকবে। আমরা এ ধরনের উদ্যোগ গ্রহনের মাধ্যমে মুজিবর্ষের অনুষ্ঠান পালন করতে চাই।

উল্লেখ্য ভাষা সৈনিক খন্দকার আব্দুল মালেক শহীদুল্লাহর বাড়ি ময়মনসিংহ জেলার মুক্তাগাছা উপজেলায়। তিনি ছিলেন মুক্তিযুদ্ধের সংগঠকও। সত্তরের নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে লড়ে হয়েছিলেন সংসদ সদস্য ও ৯৪ থেকে ৯৯ সাল পর্যন্ত মুক্তাগাছা পৌরসভার মেয়র।  অথচ সেই মানুষটা এখন অর্থাভাবে চিকিৎসা করাতে পারছেন না। অসুস্থ হয়ে কয়েকমাস ধরে শয্যাশায়ী।খোন্দকার আব্দুল মালেক শহীদুল্লাহ এক সময় রাজপথ মুখর থাকতো যার স্লোগানে সেই মানুষটিই আজ বিছানায় বন্দি। ৫২ ভাষা আন্দোলনে সক্রিয় অংশ নেয়ার অপরাধে ফেরারী আসামি হয়ে হারান ছাত্রত্ব। পরে সত্তরের নির্বাচনে অল্প বয়সে মুক্তাগাছা আসন থেকে নৌকা প্রতীক নিয়ে বিপুল ভোটে সংসদ সদস্যও নির্বাচিত হন তিনি। গত কয়েকমাস আগে স্ট্রোক করার পর তার ডান হাত ও পা অবশ হয়ে যায়। এরপর থেকে বেশ কষ্টে দিন কাটছে এ ভাষা সৈনিকের।

খোন্দকার আব্দুল মালেক শহীদুল্লাহ ছেলে খোন্দকার মনজুর মালেক সুদীপ্ত বলেন, চিকিৎসার ব্যয় মেটানো সম্ভব হচ্ছে না বিধায় বর্তমান পরিস্থিতিতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করছি। শুধুমাত্র ভাতার টাকা দিয়ে সংসার চালানো খুবই কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে।#




সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

শিক্ষাঙ্গন বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২৯৪ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই