তারিখ : ২২ অক্টোবর ২০২০, বৃহস্পতিবার

সংবাদ শিরোনাম


বিস্তারিত বিষয়

নওগাঁয় বিদ্যালয়ের নিরাপত্তা কর্মী নিয়োগে বাণিজ্য

নওগাঁয় বিদ্যালয়ের নিরাপত্তা কর্মী নিয়োগে ১৬ লাখ টাকার বাণিজ্য
[ভালুকা ডট কম : ২৩ আগস্ট]
নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার ‘পাঁঠাকাটা উচ্চ বিদ্যালয়ে’ ১৬ লাখ টাকায় নিরাপত্তা কর্মী নিয়োগের বাণিজ্যের অভিযোগ উঠেছে। আর এমন অভিযোগ উঠেছে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার, প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলাম ও তার ভাই সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেনসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধির বিরুদ্ধে।

গত বুধবার অত্র বিদ্যালয়ে নিয়োগ পরীক্ষা শুরু হওয়ার কথা থাকলেও দুপুর দেড়টায় পরীক্ষা শুরু হয়। মাত্র আধাঘন্টায় লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষা নেয়া হয়। পরে প্রধান শিক্ষক ও সভাপতির পছন্দের ব্যক্তি পাঁঠাকাটা গ্রামের সোলাইমান আলীর ছেলে মো. রকি নামে এক যুবককে নির্বাচিত করা হয় বলে ঘোষণা দেয়া হয়।

জানা গেছে, উপজেলার সফাপুর ইউনিয়ন এর ‘পাঁঠাকাটা উচ্চ বিদ্যালয়ে’ শুণ্যপদে নিরাপত্তা কর্মী নিয়োগের জন্য গত ২৫/০৬/২০২০ তারিখে একটি আঞ্চলিক ও জাতীয় পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়। এর বিপরীতে স্থানীয় ইউনিয়ন ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক মো. রকি, স্থানীয় ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি মাহমুদুল হক, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মিজানুর রহমান ও শামিম হোসেনসহ ছয়জন প্রার্থী আবেদন করেন।

ইতোপূর্বে ২০১৫ সালে নৈশ প্রহরী পদে এবং ২০১৬ সালে আলাদা করে চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী (এমএলএসএস) পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়। ২০১৬ সালে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি অনুসারে মাইনুল ইসলাম নামে একজনকে নিয়োগ দেয়া হয়। অথচ, তাকে নিয়োগে যোগদান দেয়া হয় নৈশ প্রহরী পদে। অদ্যবধি তাকে ওই পদে বহাল রাখতে তিনমাস ধরে রাত দিন কাজ করে নেয়া হচ্ছে। কিন্তু বর্তমানে তাকে ওই পদ থেকে বঞ্চিত করে ১৬ লাখ টাকার বিনিময়ে প্রধান শিক্ষক ও সভাপতির পছন্দের ব্যক্তি পাঁঠাকাটা গ্রামের মো. রকি নামে এক যুবককে নিয়োগ দেয়ার প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে বলে এলাকায় গুঞ্জন চলছিল। নিরাপত্তা কর্মী নিয়োগের জন্য ইতোপূর্বে প্রার্থী মিজানুর রহমানের কাছ থেকে দেড় লাখ টাকা অগ্রীম নিয়ে রেখেছিলেন প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলাম। এর আগে এমএলএসএস পদে ছিলেন ঘনপাড়া প্রসাদপুরের আব্দুর রাজ্জাক। তিনি অব্যাহতি দিয়ে গত জুন মাসে তুড়ুকবাড়িয়া দাখিল মাদ্রাসায় সহকারী শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন। তারপর থেকে পদটি শূন্য রয়েছে।

গত বুধবার দুপুর দেড়টায় পরীক্ষা নেয়া হয়। ছয়জন প্রার্থী আবেদন করলেও পাঁচজন অংশ নেয়। পরীক্ষা শেষে নিয়োগ কমিটি ফলাফল ঘোষণা না করে বিকেল সাড়ে ৩ টার দিকে বিদ্যালয় থেকে চলে যায়। তবে প্রার্থীদের তোপের মুখে প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলাম বিকেল ৪ টার দিকে মো. রকি নির্বাচিত হয়েছে বলে ঘোষণা দেন।

চাকরি প্রার্থী মিজানুর রহমান বলেন, আমার কাছ থেকে যে টাকা নেয়া হয়েছে তা ফেরত দিলে তো কোন কথা নাই। তবে নিরাপত্তা কর্মী নিয়োগে যে পরীক্ষা নেয়া হয়, তা লোক দেখানো ছাড়া আর কিছুই না। তাদের পছন্দের প্রার্থীকেই তারা নির্বাচিত করেছে।

আরেক প্রার্থী মাহমুদুল হক অভিযোগ করে বলেন, আমরা আগেই জানতে পেরেছিলাম রকি নামে একজনকে ১৫ লাখ টাকায় নিয়োগ দেয়া হবে এবং লেনদেনও হয়েছে। পরীক্ষার পর নিয়োগ কমিটির সবাই চলে যান। পরে তোপের মুখে প্রধান শিক্ষক রকি নির্বাচিত হয়েছে বলে নাম ঘোষণা দেয়।

এ ব্যাপারে মো. রকি বলেন, মানুষতো অনেক কথায় বলে। তবে কোন টাকার লেনদেন হয়নি। কর্তৃপক্ষ ইচ্ছে করলে টাকা ছাড়াই নিয়োগ দিবেন।প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলাম ও সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন টাকা দিয়ে নিয়োগ দেয়ার বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, যদি নিয়োগ বিধি উপেক্ষা করে নিয়োগ দিতাম তাহলে শিক্ষা অফিসকে অবগত করতাম না। স্বচ্ছতার সহিত নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পূর্ন হয়। ডিজি প্রতিনিধি ও শিক্ষা অফিসার যাওয়ার সময় আমাকে ফলাফল ঘোষণার অনুমতি দিয়ে গেছেন।

ডিজি প্রতিনিধি নওগাঁ সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নিলিমা আক্তার বলেন, পরীক্ষা শেষে ফলাফল ঘোষণা না দিয়ে বিকেল সাড়ে ৩ টার দিকে বিদ্যালয় থেকে বেরিয়ে আসি। ওই সময় নিয়োগ প্রার্থীরা না থাকায় ফলাফল ঘোষণা করা হয়নি।

মহাদেবপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হাবিবুর রহমান তার বিরুদ্ধে অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, দেনদরবারের কোন প্রশ্নই আসে না। স্বচ্ছতার সহিত নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পূর্ন হয়েছে।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

শিক্ষাঙ্গন বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২৯৫ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই