তারিখ : ২৭ অক্টোবর ২০২০, মঙ্গলবার

সংবাদ শিরোনাম


বিস্তারিত বিষয়

নওগাঁয় প্রকাশ্যে চলছে মাদকের আসর

নওগাঁয় প্রকাশ্যে চলছে মাদকের আসর,হুমকির মুখে যুব সমাজ
[ভালুকা ডট কম : ২০ সেপ্টেম্বর]
নওগাঁর বদলগাছী উপজেলার কাষ্টগাড়ী গ্রামের মাঠে ফিড এন্ড সিক্স  নামের একটি মাছের খাদ্য উৎপাদন ও সরবরাহ কোম্পানীর রিজিওনাল মার্কেটিং ম্যানেজার জাহিদের নিয়মিত মাদকের আসর বসে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এই আসরে এলাকার কিছু তরুণ নিয়মিত অংশ গ্রহন করছে। ফলে এলাকায় একদিকে মাদকসেবীদের সংখ্যা বাড়ছে অপরদিকে দিন দিন আইনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটছে। এতে এলাকার অভিভাবকরা চরম আতংকের মধ্যে দিন কাটাচ্ছে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, বছর দুয়েক আগে মাছের খাদ্য উৎপাদন ও সরবরাহকারী ‘ফিড এন্ড সিক্স’ নামের একটি  প্রতিষ্ঠানের রিজিওনাল মার্কেটিং ম্যানেজার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন মো: জাহিদ হোসেন। বিভিন্ন পুকুর পরিদর্শনের নামে বদলগাছী উপজেলার কাষ্টগাড়ী মাঠে তিনি নিয়মিত যান এবং সেখানে একটি পুকুর পাড়ে নিয়মিত মাদকের আসর বসান। এই আসরে মাদকের জোগান দেন জয়পুরহাট জেলার নহেলা বাঁশকাটা গ্রামের মাদক ব্যবসায়ী শ্রী পরি মন্ডল।

জানা গেছে, জয়পুরহাট থানায় পরি মন্ডলের নামে একাধিক মাদকের মামলা রয়েছে। এই মাদকের আসরে যোগ দেয় এলাকার কমবয়সী তরুণরা এবং রিজিওনাল মার্কেটিং ম্যানেজার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন মো: জাহিদ হোসেনেকে ভিডিওতে দেখা গেছে। কোম্পানীতে চাকুরী করতে এসে মাদকের আসর বসিয়ে এলাকার তরুনদের মাদকাসক্ত করছে এই জাহিদ। স্থানীয় বাসিন্দারা জাহিদের অপসারন ও শাস্তি দাবি করছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মথুরাপুর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য জানান শুনেছি একজন কোম্পানীর লোক কাষ্টগাড়ী মাঠে নিয়মিত মাদকের আসর বসাচ্ছে। এ ব্যাপারে এলাকাবাসী ও প্রশাসনের সহযোগিতায় মাদকের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

জাহিদ হোসেন জানান, আমি ফিড এন্ড সিক্স কোম্পানীতে চাকরি করি। আমি কোনো মাদক ব্যবসায়ী নয় বা আমি মাদক ব্যবসা করি না এবং মাদক ব্যবসায়ীদের কোনো মামলার তদবির করিনা । তবে আমি একদিন মাদক সেবন করেছি মজা করে। আমি সেই দিন মাদক সেবন করে ছিলাম শুধুমাত্র আমার ডিলার মালিকের ভাইয়ের বিয়ে ছিল। তাই সেই দিন বাংলা মদ, ভারতীয় ফেন্সিডিল ও বিয়ার কয়েক জনকে নিয়ে খেয়ে ছিলাম। তিনি আরোও বলেন আসেন নিউজ না করে আসেন দেখা করি লেনদেনের বিষয়টি বিনিময়ে মিট করি।

ফিড এন্ড সিক্স কোম্পানীর ডিরেক্টর মিজানুর রহমান (তৌফিক) বলেন, আমরা তার কাগজ পত্র যাচাই-বাছাই করে তাকে কোম্পানীতে চাকরি দিয়েছি। কিন্তু সে মাদক ব্যবসায়ী কিনা বা মাদক সেবন করেন কিনা সে সম্পর্কে আমার জানা নাই।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অপরাধ জগত বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২৯৫ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই