তারিখ : ২৯ অক্টোবর ২০২০, বৃহস্পতিবার

সংবাদ শিরোনাম


বিস্তারিত বিষয়

শ্রীপুরে কৃষক পরিবারের পাকা সীমানা প্রাচীর ভাঙচুর

শ্রীপুরে কৃষক পরিবারের পাকা সীমানা প্রাচীর ভাঙচুর -জমি জবর দখলের হুমকি
[ভালুকা ডট কম : ২১ সেপ্টেম্বর]
গাজীপুরের শ্রীপুরে এক কৃষকের পাকা সীমানা প্রাচীর  ভেঙে স্থাপনা তৈরীর আসবাবপত্র লুটে নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার বেলা ১১ টার দিকে শ্রীপুর পৌরসভার গিলার চালা আসপাডা মোড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় কৃষক পরিবারের পক্ষ থেকে শ্রীপুর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। ওই অভিযোগে গিলারচালা গ্রামের মোহাম্মদ আলীর ছেলে আবুল হাশেম, আবুল কাশেমের ছেলে বিল্লাল হোসেন, হাসানের ছেলে আমজাদ হোসেন ও সোহেল সহ অজ্ঞাত নামাদের অভিযুক্ত করা হয়েছে।

অভিযোগে বলা হয়েছে দীর্ঘদিন যাবত কৃষক পরিবার সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করে শান্তিপূর্ন ওই জায়গাটিতে বসবাস করে আসছিলেন। অতিসম্প্রতি অভিযুক্তরা ওই জায়গাটি দখল করার জন্য বিভিন্নভাবে হুমকি ধামকি দিয়ে আসছে।  এরই প্রেক্ষিতে সোমবার বেলা এগারটার দিকে অভিযুক্তরা তাদের ভাড়া করা লোকজন নিয়ে কৃষক পরিবারের পাকা সীমানা প্রচীর ভেঙে ফেলে। পরে স্থাপনা তৈরীর টিন, বাশ ও অন্যান্য আসবাবপত্র লুটে নেয়। অভিযুক্তরা কেওয়া মৌজার এসএ ১৩৮৭ নম্বর দাগের সম্পত্তি জোরপূর্বক দখল নিতে স্থাপনা নির্মাণের হুমকি দিয়ে চলে যায়।

কৃষক পরিবারের পক্ষে শাহানাজ আক্তার জানান  তাদের অভিযোগটি শ্রীপুর থানা পুলিশ আমলে নেয়নি। ৫ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করার সীমানা প্রাচীর ভেঙে ফেলায় তারা খুন জমি জবরদখল আতঙ্কে ভুগছেন।

অভিযুক্ত বিল্লাল হোসেন সাংবাদিকদের জানান,যা হয়েছে তা পরে  দেখা যাবে।এ ব্যাপারে শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা খন্দকার মোহাম্মদ ইমাম হোসেন জানান, দুই পক্ষের দাবি অনুযায়ী আগামী শনিবার পর্যন্ত তাদেরকে স্থানীয় ভাবে ঘটনা নিষ্পত্তির জন্য  জন্য সময় দেওয়া হয়েছে।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অপরাধ জগত বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২৯৬ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই