তারিখ : ২৪ জুন ২০২১, বৃহস্পতিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

হাত খরচের টাকা দিয়ে অসহায় শিশুদের ঈদ উপহার

হাত খরচের টাকা দিয়ে অসহায় শিশুদের ঈদ উপহার দিলো নওগাঁ ব্লাড সার্কেল ও মুক্ত পাঠশালার স্বেচ্ছাসেবকরা
[ভালুকা ডট কম : ১১ মে]
নওগাঁ অসহায় ও ছিন্নমূল শিশুদের মাঝে ঈদের খুশি বিলিয়ে দিতে ঈদ উপহার বিরতণ করেছে দুই সেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন। সোমবার মঙ্গলবার নওগাঁ সদর উপজেলার তিলকপুর ইউনিয়নের কাঁদোয়া গ্রামে নওগাঁ ব্লাড সার্কেল ও মুক্ত পাঠশালার সেচ্ছাসেবকদের  উদ্যোগে ১০০জন অহসহায় ও ছিন্নমূল শিশু শিক্ষার্থীদের মাঝে এই ঈদ উপহার বিতরণ করা হয়। ঈদ উপহার হিসেবে প্রত্যেককে একটি করে নতুন জামা, লাচ্চা-সেমাই, চিনি, দুধ, সুগুন্ধি চালসহ খাদ্যসামগ্রীর একটি প্যাকেট দেয়া হয়।

উপহার পাওয়া মুক্তপাঠশালার শিক্ষার্থী বর্ষা আক্তার (৯) বলেন, আমার বাবার জামা কিনে দেয়ার সামর্থ্য নেই। আমি ভেবেছিলাম এই ঈদে আর কোন নতুন জামা আমার কপালে জুটবে না কিন্তু আজ ভাইয়ারা আমাকে নতুন জামা ও ঈদের খাবার দিয়েছে। আমি অনেক খুশি এমন উপহার পেয়ে।

সালমান ফারসি (৮) রসুল নামে মুক্তপাঠশালার আরেক শিক্ষার্থী বলেন, আমাদের মত গরীব শিশুদের কয়েকজন ভাইয়া ও আপুরা পাঠদান করে। এখানে ৫ম শ্রেণীর পড়া পাঠদান করানো হয়। এবার ঈদে ব্লাড সার্কেল ও মুক্ত পাঠশালার পক্ষ থেকে  ঈদ উপহার পেয়ে আমরা খুবই আনন্দিত।

নওগাঁ ব্লাড সার্কেল সভাপতি আবু ইউসুফ বলেন, আমরা চেয়েছি আমাদের ২০জন সদস্য হাত খরচের টাকা থেকে কিছু টাকা বাঁচিয়ে নওগাঁ ব্লাড সার্কেল বন্ধুরা মিলে দরিদ্র, অসহায় ও ছিন্নমূল শিশুদের হাতে ঈদ সামগ্রী তুলে দিতে। এতে বন্ধু ও শিশুর মধ্যে বন্ধন তৈরি হবে। তারই ধারাবহিকতায় আমাদের সংগঠন ও পাঠশালার যৌথ উদ্যোগে অসহায় শিশুদের পাশে দাঁড়াতে পেরে খুবই ভালো লাগছে।

মুক্ত পাঠশালার প্রধান শিক্ষিকা ও নওগাঁ সরকারি কলেজের অনার্স ৩য় বর্ষের শিক্ষার্থী নাজমিন মুন্নি বলেন, ২০১৮ সালে নিজ উদ্যোগে ১৬ জন শিশু নিয়ে এই পাঠশালার শুরু করি। বর্তমানে এই পাঠশালার ছেলে -মেয়ে মিয়ে মোট ১০০ জন শিক্ষার্থী রয়েছে। এই পাঠশালায় ৫ম শ্রেণী পর্যন্ত বিনা বেতনে পাঠ দান দেয়া হয়। নওগাঁ ব্লাড সার্কেল ও আমাদের পাঠশালার সদস্যদের হাত খরচেরে টাকা বাঁচিয়ে শিশুদের কিছু উপহার দিতে পেরে সত্যি খুব ভালো লাগছে।

তিনি আরো বলেন, এই পাঠশালার জন্য নির্ধারিত কোন জায়গাা নেই। প্রতিদিন খোলা আকাশের নিচে পাঠদান করানো হয়।  তবে করোনা কালীন সময়ে স্কুলটি বন্ধ রয়েছে। সরকারের কাছে আকুল আবেদন পাঠশালাটির জন্য এক টুকরো জমি দান যেন করে। বর্তমানে আমরা ১২জন মিলে পাঠশালায় শিশুদের পাঠদান করায়।

স্থানীয় তেঁতুলিয়া বিএমসি কলেজের অধ্যক্ষ সিদ্দিকুর রহমান বলেন, ওরা শিশু। তাদের কাছে ঈদের দিনটিও অন্যসব দিনের মতো সাধারণ। তবে এবার এই শিশুদের মুখে হাসি ফোটাতে এগিয়ে এসেছে নওগাঁ ব্লাড সার্কেল নামের সামাজিক সংগঠন ও মুক্ত পাঠশালার সেচ্ছাসেবকরা । ঈদের কয়েক দিন আগে খাবার ও নতুন পোষাক তুলে দিয়েছেন  শিশুদের হাতে। যা খুবই প্রসংশনীয়।

স্থানীয় তিলকপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল করিম বলেন, অসহায় ১০০ শিশুর হাতে নতুন জামা ও খাবার তুলে দেন নওগাঁ ব্লাড সার্কেল ও মুক্তপাঠশালার সদস্যরা। ব্যতিক্রমধর্মী এই আয়োজনের জন্য সকলকে ধন্যবাদ জানাই।

এ সময় উপস্থিত উপস্থিত ছিলেন নওগাঁ ব্লাড সার্কেলের সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ আলম, পরিচালক সৈয়ব আহমেদ সিয়াম, দপ্তর সম্পাদক মোতাসিন বিল্লাহ রিফাত, রবিউল ইসলাম, তামান্না খাতুন, উম্মে সাদিয়া সোলায়েত মুন, শারাফাত প্রত্যয়, রায়হান, তানভীর আহমেদ সিহাব, আলামিন রিফাত, রবিউল ইসলাম প্রমূখ।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

নারী ও শিশু বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১৩১১ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই