তারিখ : ২৪ জুন ২০২১, বৃহস্পতিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

ভালুকায় কোম্পানির সীমানা প্রাচীর ভেঙে ফেলার অভিযোগ

ভালুকায় কোম্পানির সীমানা প্রাচীর ভেঙে ফেলার অভিযোগ
[ভালুকা ডট কম : ১৭ মে]
ভালুকা উপজেলার ভরাডোবা এলাকায় সোমবার(১৭এপ্রিল)দুপুরে মুলতাজিম স্পিনিং মিলের সীমানা প্রাচীর ভেঙে ফেলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় কোম্পানি অ্যাডমিন ম্যানেজার রবিউল আলম বাদী হয়ে তিনজনের নাম উল্লেখ করে ভালুকা মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

অভিযোগে জানাযায়, মুলতাজিম স্পিনিং মিল নামে একটি রপ্তানিমুখী কোম্পানি ৭/৮বছর পূর্বে ভরাডোবা মৌজার ৯৯৮ ও ৯৯৯নং দাগে এক একর ৯৪শতাংশ জমি ক্রয় করে। গত ১০/১২দিন যাবত ওই জমিতে কোম্পানির পক্ষ থেকে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করছে। ঘটনার দিন দুপুরে ভরাডোবা গ্রামের বাসিন্দা মকবুল হোসেন তার ছেলে পুলিশের এএসআই শহিদুল ইসলাম ও ছোট ছেলে সাদ্দামের নেতৃত্বে কোম্পানির ওই সীমানা প্রাচীর ভেঙে ফেলে। এ ঘটনায় রবিউল ইসলাম বাদী হয়ে তিন জনের নাম উল্লেখ করে ভালুকা মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেন। শহিদুল ইসলাম নরসিংদী পুলিশ লাইলে এএসআই পদে কর্মরত আছেন।

মকবুল হোসেন জানান,আমার জমির উপর কোম্পানির লোকজন জোরপূর্বক সীমানা প্রাচীর নির্মাণ শুরু করে। আমি তাদেরকে কাজ করতে নিষেধ করলেও তারা কাজ করতে থাকে। তাই আমি আমার জমির উপর নির্মাণ করা ওয়াল ভেঙে ফেলেছি।

রবিউল আলম জানান,আমরা ৭/৮বছর পূর্বে ওই জমি কিনেছি। আমি মকবুলকে বলেছি জমি মাপার জন্য। মাপের পর যদি তার জমিতে আমরা সীমানা প্রাচীর করে থাকি তাহলে,কোম্পানির খরচ দিয়ে সেই দেয়াল ভেঙে নিয়ে আসব। আমার কথা না শুনে সে তার দুই ছেলেসহ আরও ১০/১৫জন লোক নিয়ে কোম্পানির সীমানা প্রাচীর ভেঙে ফেলে।

ওসি অপারেশন আবু বকর সিদ্দিক জানান, মকবুল হোসেনের অভিযোগের প্রেক্ষিতে আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করতে গিয়ে ছিলাম। দুই পক্ষের কাউকে সেখানে পাইনি।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

ভালুকা বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১৩১১ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই