তারিখ : ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, বুধবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

ভিকারুননিসার অধ্যক্ষের ফোনালাপের ঘটনায় তদন্ত কমিটি

ভিকারুননিসার অধ্যক্ষের ফোনালাপের ঘটনায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তদন্ত কমিটি
[ভালুকা ডট কম : ২৭ জুলাই]
ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ কামরুন নাহারের সঙ্গে এক অভিভাবকের ফোনালাপ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার (ভাইরাল) ঘটনায় একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। মঙ্গলবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (নিরীক্ষা ও আইন) খালেদা আক্তারকে সভাপতি করে দুই সদস্যের কমিটি গঠন করেছে মন্ত্রণালয়। কমিটির অপর সদস্য হলেন মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক (মাধ্যমিক) মোহাম্মদ বেলাল হোসাইন। কমিটিকে আগামী তিন কর্মদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। এই বিষয়ে আজ রাতে জানতে চাইলে বেলাল হোসাইন এখনই এ বিষয়ে কিছু বলতে চাননি।

‘আমি বালিশের নিচে পিস্তল রাখি। কোনো ...বাচ্চা যদি আমার পেছনে লাগে, তাহলে আমি ওর পেছনে লাগব। আমি শুধু ভিকারুননিসা নয়, দেশছাড়া করব।’— এভাবেই ফোনে মীর সাহাবুদ্দিন টিপু নামে অভিভাবক ফোরামের নেতার সঙ্গে আলাপকালে কথাগুলো বলছিলেন ভিকারুননিসা নুন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ কামরুন নাহার।=ভাইরাল হওয়া ওই ফোনালাপে অনেক কথার মধ্যে কিছু অশ্লীল কথাও রয়েছে। এই ফোনালাপের বিষয়টি দুই দিন ধরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপক আলোচিত হচ্ছে। রেকর্ডটিতে ৪ মিনিট ৩৯ সেকেন্ড ধরে অধ্যক্ষ ও অভিভাবক ফোরামের নেতা মীর সাহাবুদ্দিন টিপু কথা বলেন। এতে অধ্যক্ষ এমন বিশ্রি ও অশ্লীল ভাষায় গালাগাল করেছেন যা শোনারও অযোগ্য।

অডিওতে কামরুন নাহার দাবি করেন, তিনি ক্ষমতাসীন দলের সাবেক কর্মী। এ সময় তিনি নিজেকে ‘অভদ্র রাজনৈতিক মেয়ে’ বলে দাবি করেন। কেউ একজনকে ‘কোপানোর’ হুমকি দিয়ে ‘আগের চরিত্রে’ ফিরে যাওয়ার কথাও বলেন তিনি। তিনি বলেন ‘আমার বিরুদ্ধে যারা লেখে রাস্তায় পিটিয়ে তাদের কাপড় খুলে নেব।

তবে অধ্যক্ষ কামরুন নাহার গণমাধ্যমের কাছে দাবি করেন, ফোনালাপের কথাগুলো তাঁর নয়। যাঁরা অবৈধ ও অনৈতিক সুবিধা চেয়েও পাননি, তাঁরাই এসব ষড়যন্ত্র করছেন। তিনি মনে করছেন, ‘এডিট’ করে এটি করা হয়েছে।

অভিভাবক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক মো. আবদুল মজিদ সুজন বলেন, কামরুন নাহার বেপরোয়া হয়ে অনিয়ম করে যাচ্ছেন। এই কলেজে এমন অধ্যক্ষ যায় না। তিনি স্বেচ্চাচারী, এটি নিয়ে তাকে কিছু বলা যাবে না। তার মুখের ভাষা কী বিশ্রি এটা এখন সবাই জানে। আপনারাই বলুন এমন মানুষ ভিকারুননেসার মতো কলেজের অধ্যক্ষ হয় কীভাবে?

বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারের কর্মকর্তা কামরুন নাহারকে গত বছরের ডিসেম্বরে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ হিসেবে নিয়োগ দেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অন্যান্য বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১৩১৯ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই