তারিখ : ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, বুধবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

বঙ্গবন্ধু সাফারী পার্কে বেড়েছে প্রাণির সংখ্যা

বঙ্গবন্ধু সাফারী পার্কে বেড়েছে প্রাণির সংখ্যা,গাছে গাছে পাখির বাসা
[ভালুকা ডট কম : ২০ আগস্ট]
গাজীপুরের শ্রীপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবা সাফারী পার্ক প্রায় পাঁচ মাস পর খুলে দেওয়া হয়েছে। শুক্রবার (২০ আগস্ট) সকাল থেকেই দর্শণার্থীরা পার্কে প্রবেশ করছেন। দর্শণার্থী শূন্য হওয়ায় গত প্রায় পাঁচ মাসে পার্কের প্রাণীর সংখ্যা বেড়েছে। গাছপালা লাতাপাতার মধ্যেও সবুজের সমারোহ প্রাকৃতিক পরিবেশে সবুজের এক নতুন সংযোজন ঘটিয়েছে।

গাজীপুরের কালীগঞ্জের জাঙ্গালিয়া এলাকা থেকে স্ত্রী ও দুই ছেলে নিয়ে সাফারি পার্কে ঘুরতে এসেছেন জয়নাল আবেদীন। তিনি বলেন, দীর্ঘদিন লকডাউনে পার্ক বন্ধ থাকায় ইচ্ছা থাকলেও পরিাবের সদস্যদেরকে নিয়ে ঘুরতে পারি নাই। ছেলে-মেয়েরা তাদের স্কুল বন্ধ থাকায় বাড়ীতে বুড়িং ফিল করছিলো। সকালে টিভিতে সন্তানেরা দেখলো আজ শুক্রবার (২০ আগস্ট) থেকে সাফারি পার্ক খুলে দেওয়া হয়েছে দর্শনার্থীদের জন্য। তারা এ ঘোষনা দেখে আবদার করলো । তাদেরকে না করে বেলা ১১টায় সাফারি পার্কে এসে পৌছেছি। ঘুরে ভালই লাগছে।

ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট উপজেলার গাজিরভিটা এলাকার রফিকুল, এমদাদ, সোহাগসহ তারা ১০ বন্ধু সাফারি পার্কে ঘুরতে এসছে। তারা জানায়, প্রথমদিন থাকায় পার্কে একটু ভীড় কম। ঘুরে মজা পাচ্ছি। ভীড় কম থাকায় করোনার ভয়টা এখন নাই। হয়তো আগামীকাল তখে দর্শণার্থীদের সমাগম বেশি থাকতে পারে।

লক্ষীপুরের রামগতি উপজেলার আলেকজান্ডার সরকারি মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক বদরুল হোসেন মিলন বলেন, ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের বাঘের বাজার থেকে সাফারী পার্কের যে সংযোগ সড়ক রয়েছে এটা চলাচলের জন্য একবারেই অনুপযোগী। এ সড়কটি সংষ্কার করা খুবই জরুরী। ভাঙ্গাচোরা সড়ক সংষ্কার করা হলে চিত্ত বিনোদনে দর্শনার্থদের জন্য সুন্দর একটা জায়গা। সড়কের করুন অবস্থার জন্য অনেকটাই দুর্ভোগের শিকার হতে হয় সাফারি পার্কে আসা দর্শনার্থীদের।

ফিরোজ আলম রাজশাহী থেকে এসেছেন পার্কে ঘুরতে। তিনি বলেন, দীর্ঘদিন লকডাউনের কারণে অনেকটা বন্দি দশায় ছিলেন। পার্ক খুলে দেওয়ায় প্রকৃতির মতো তাদের মধ্যেও বৈচিত্রতা বিরাজ করছে। বিনোদনের এসব প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ায় মানুষের মধ্যেও উৎফুল্ল পরিবেশ বিরাজ করছে।

রাজশাহীর বাসিন্দা বুলবুল ইসলাম কাজ করেন তেজগাঁওয়ের একটি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে চাকুরী করেন। তিনি বলেন, তারা সাত বন্ধু ঘূরতে এসেছেন। পার্কের ভেতর সবুজের সমারোহ নতুন বৈচিত্র্যতা এনে দিয়েছে। কোর সাফারীতে কর্মীরা পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার কাজ করছেন। কিছু কিূছ হিংস্র প্রাণী এখনও দর্শণার্থীদের জন্য উম্মুক্ত করা হয়নি।

কোর সাফারীর ইজারাদারের পক্ষে নাবিল ইসলাম বলেন, সকাল সাড়ে ১১টায় যে দর্শণার্থী এসেছেন অন্যান্য দিন এসময়ে তা অনেক বেশি থাকে। আশা করা হচ্ছ্ কয়েকদিন পর জানাজানি হলে লকডাউনের আগে দর্শণার্থীদের যে ভীড় ছিল তা পরিলক্ষিত হবে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারী পার্কের সহকারী বন সংরক্ষক তবিবুর রহমান জানান, শুক্রবার (২০ আগস্ট) থেকে উম্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছে। পার্ক বন্ধ থাকাবস্থায় ব্যাপক পরিবর্তন হয়েছে। এখানের বন্য প্রাণীগুলোর প্রজনন অনেকটা বেড়েছে। ওয়াইল্ড বিস্টের ৬টা বাচ্চা হয়েছে। ৬টা জেব্রার বাচ্চা হয়েছে, এর সংখ্যা এখন ২৯। হরিণ বাচ্চা দিয়েছে ১৫টি। ময়ূরের বাচ্চা হয়েছে ৩৫ টি। এসব প্রাণীর জন্ম খুব স্বাভাবিকভাবেই হয়েছে। যেহেতু এখানে কোনো কোলাহল ছিল না লোকজনের ডিস্টার্ব ছিল না। বর্তমানে এগুলো দর্শণার্থীদের জন্য বাড়তি একটি আকর্ষণ।

সাফারী পার্কের প্রাকৃতিক পরিবেশেও বৈচিত্রতা এসেছে। এখানকার গাছগুলোতে অসংখ্য পাখি বাসা বেঁধেছে। পানকৌড়ি, তেলা ঘুঘুসহ অসংখ্য প্রজাতির ঘুঘু, বক প্রকৃতিতে পাখিতে ভরপুর। যে পাখিগুলো বাসা বেঁধেছে সেগুলো বাচ্চা দিয়েছে। সবমিলিয়ে পার্ক এখন পাখির রাজ্যে পরিণত হয়েছে।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

বিনোদন বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১৩১৯ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই