তারিখ : ১৮ আগস্ট ২০২২, বৃহস্পতিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

রাণীনগরে শিক্ষা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগ

রাণীনগরে শিক্ষা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে স্কুলে আসা বরাদ্দের অর্থ ছাড় না দেওয়ার অভিযোগ
[ভালুকা ডট কম : ২৮ অক্টোবর]
নওগাঁর রাণীনগর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন প্রকল্পের অর্থ ছাড় না দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সুবিধাভোগী বিদ্যালয়গুলোর কাজ করার জন্য সরকারের বরাদ্দকৃত অর্থ নিতে গেলে স্কুল প্রধানদের হয়রানী করারও অভিযোগও পাওয়া গেছে।

সূত্রে জানা গেছে, জাতীয়করন হওয়া উপজেলার চকাদিন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নতুন একটি ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। গত ২০১৮-১৯অর্থবছরে বিদ্যালয়টির মেরামতের জন্য ২লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয় কিন্তু আজ পর্যন্ত সেই টাকা শিক্ষা কর্মকর্তা তার কাছেই রেখে দিয়েছেন। অথচ স্কুলের কিছু জরুরী কাজ করাও খুব প্রয়োজন। স্কুল প্রধান ব্রেঞ্চসহ অন্যান্য উপকরন ক্রয়ের জন্য ওই টাকা আজ পর্যন্ত উত্তোলন করতে পারেননি। কর্মকর্তা নানা বাহানায় স্কুল প্রধানকে হয়রানী করছে বলে জানান চকাদিন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রাজুফা খানম।

একই দৃশ্য উপজেলার পোঁওতাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাইদুর রহমান মুঠোফোনে জানান আমার স্কুলের মেরামত কাজের জন্য গত ২০১৮-১৯অর্থবছরে দেড় লাখ টাকা বরাদ্দ আসে। বরাদ্দের সেই টাকা চাইতে গেলে কর্মকর্তা বিভিন্ন রকমের কারন দেখান। কর্মকর্তা বলেন যে কাজ করে এসে টাকা নিয়ে যান। কিন্তু এতোগুলো টাকা আমাদের পক্ষে যোগান দিয়ে কাজ করা সম্ভব নয়। এছাড়া স্কুলের মেরামতের কাজ করাও জরুরী।

উপজেলার ভেবড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়েও প্রধান শিক্ষক গোলাম মোস্তফা জানান একই অর্থবছরে স্কুলের মেরামত কাজের জন্য ২লাখ টাকা বরাদ্দ এসেছিলো। অনেক চেস্টা করার পর সম্প্রতি ওই টাকা পেয়েছি এবং মেরামতের কাজ শুরু করেছি।

এছাড়াও উপজেলার বিভিন্ন বিদ্যালয়ের স্লিপ, রুটিন ও বিদ্যালয় মেরামতের টাকাসহ বিভিন্ন ফান্ডের ২০১৯-২০ ও ২০২০-২১ অর্থবছরের টাকা সুবিধাভোগী বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে না দিয়ে এখন পর্যন্ত শিক্ষা কর্মকর্তা তার কাছে গচ্ছিত রেখেছেন বলেও জানা গেছে।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা আবুল বাসার সামছুজ্জামান বলেন আমি সরকারের নিয়মমাফিক সকল কাজ সম্পন্ন করার চেস্টা করে আসছি। আমার অফিসে কোন অনিয়ম বা দুর্নীতির স্থান নেই। তাই যে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বরাদ্দকৃত অর্থ এখন পর্যন্ত ছাড় কেন দেওয়া হয়নি সেই বিষয়ে তদন্ত করে অর্থ বরাদ্দ দেওয়া হবে।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

শিক্ষাঙ্গন বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫১৩১ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই