তারিখ : ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, বৃহস্পতিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

পত্নীতলার চারটি ইউনিয়নের ফলাফল স্থগিত

নওগাঁর পত্নীতলার চারটি ইউনিয়নের ফলাফল স্থগিত
[ভালুকা ডট কম : ০৬ জানুয়ারী]
নওগাঁর পত্নীতলা উপজেলার ঘোষনগর ইউনিয়নে ভোটগ্রহণ শেষে গণনা না করে দুটি কেন্দ্রের ব্যালট ও সরঞ্জাম নিয়ে ফেরার সময় পুলিশের ওপর হামলা হয়েছে। চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী ফারজানা আক্তার, ওই কেন্দ্রে প্রতিদ্বন্দ্বীতাকারী ইউপি সদস্য প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকেরা এ হামলা চালায়। পুলিশের দুটি গাড়িতে আগুন লাগিয়ে দিয়ে ম্যাজিস্ট্রেটের একটি গাড়ি ভাঙচুর করে হামলাকারীরা।

বুধবার সন্ধা ৭টার দিকে উপজেলার ঘোষনগর ইউনিয়নের কমলাবাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ঘোষনগর উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রের ব্যালট ও মালামাল নিয়ে ফেরত আসার পথে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ওই দুই কেন্দ্রের ফলাফল স্থগিত রাখা হয়েছে।

চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী ফারজানা আক্তার ও কয়েকজন ইউপি সদস্য প্রার্থী বলেন, ভোট গণনা না করেই ব্যালট ও সরঞ্জাম নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। তাই বিক্ষুপ্ত জনতা এ ঘটনা ঘটায়। তাদের কর্মী-সমর্থকেরা এ ধরণের হামলার সঙ্গে জড়িত ছিলেন না। পুলিশের ছোঁড়া রাবার বুলেটের আঘাতে অন্তত ৩০জন মানুষ আহত হয়েছে। এদের মধ্যে শিশু ও নারীও রয়েছে।

অন্যদিকে উপজেলার পত্নীতলা সদর ইউনিয়নের মথুরাপুর, কৃষ্ণুপুর ইউনিয়নের পানিওড়া ও আকবর ইউনিয়নের মান্দাইন কেন্দ্রেও ভোট গণনা নিয়ে পুলিশের সঙ্গে স্থানীয় জনতার সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এসব সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশ সদস্যসহ অন্তত ৩০জন আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় ওই তিনটি কেন্দ্রের ফলাফল স্থগিত রাখা হয়েছে।

প্রতিদ্বন্দ্বী চেয়ারম্যান ও সদস্য প্রার্থী এবং স্থানীয় জনগণের অভিযোগ, ভোট গণনা না করেই ব্যালট ও মালামাল নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। গণনা না করে ব্যালট ও মালামাল নিতে জনগণ বাধা দিলে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ বাধে।

পত্নীতলা সদর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী স্বতন্ত্র প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ওবায়দুল ইসলাম বলেন, এখানে নৌকার প্রার্থীর চেয়ে আমি প্রায় ১হাজার ভোটে এগিয়ে আছি। নৌকার প্রার্থী জিতিয়ে দেওয়ার জন্য ব্যালট উপজেলা সদরে ফলাফল ঘোষণার ষড়যন্ত্র করা হয়েছে।ভোটের ফলাফল স্থগিত থাকা একটি করে কেন্দ্র ছাড়া বাকি কেন্দ্রগুলোতে কৃষ্ণুপুরে স্বতন্ত্র প্রার্থী নজরুল ইসলাম এগিয়ে আছেন। আকবর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী সুলতান মাহমুদ এগিয়ে আছেন।

এ বিষয়ে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মাহমুদ হাছান বলেন, পত্নীতলার উপজেলার চারটি ইউনিয়নের পাঁচটি ভোট কেন্দ্রে সংঘর্ষের কারণে ওই সব ইউনিয়নের ফলাফল স্থগিত রাখা হয়েছে। ওই সব কেন্দ্রে পুনরায় নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করে ভোট নেওয়া হবে। এরপর ওই চারটি ইউনিয়নের ফলাফল ঘোষণা হবে।

নওগাঁর পুলিশ সুপার আবদুল মান্নান মিয়া বলেন, দুটি পুলিশ ভ্যানে অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে। এছাড়া পুলিশের রিকুইজিশন করা ভোটের ডিউটিতে একজন ম্যাজিস্ট্রেটের গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে। বেশ কিছু ব্যালট বাক্সও ছিনিয়ে নেওয়া হয়েছে। হামলায় পুলিশের বেশ কিছু সদস্য আহত হয়েছেন। সরকারি কাজে বাধা, পুলিশের গাড়িতে হামলা ও ভাঙচুর এবং ব্যালট বাক্স ছিনতাইয়ের অভিযোগে মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

বুধবার অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ফলাফল স্থগিত হওয়া পত্নীতলা উপজেলার ওই চারটি ইউনিয়ন ছাড়া বাকি সাতটি ইউনিয়নের ফলাফলে দুটিতে আওয়ামী লীগের প্রার্থী, তিনটিতে স্বতন্ত্র হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করা আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী এবং দুটিতে স্বতন্ত্র হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করা বিএনপি নেতা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।#




সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

নির্বাচন বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৫৩৫ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই