তারিখ : ২২ মে ২০২৪, বুধবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

সিরাজগঞ্জে কর্পোরেশনের জায়গা দখলের অভিযোগ

সিরাজগঞ্জে জুট মিলস কর্পোরেশনের জায়গা দখলের অভিযোগ
[ভালুকা ডট কম : ১৪ ফেব্রুয়ারী]
সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় জুট মিলস কর্পোরেশনের (পাটের গোডাউন) এর জায়গা দখল করে বাড়ী-ঘর ও দোকানপাট নির্মাণ করে ভাড়া দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে প্রশান্ত কুমার দাসের বিরুদ্ধে।

জুট মিলস কর্পোরেশনের উত্তরাঞ্চল (রংপুর) রুদ্ধপুর জোন অফিস সুত্রে জানা যায়, সিরাজগঞ্জ উল্লাপাড়া উপজেলার শ্রী শ্রী বলরাম জিও মন্দিরের পাশে জুট মিলস কর্পোরেশনের ঘোষগাঁতী মৌজার ৭২, ৭৩, ১১০ ও ১১১ সহ বিভিন্ন দাগে ১২৪ শতাংশ জমির ছিল। সেখানে ৭টি পাটের গোডাউন, ২টি পাট বান্ডিল মেশিন, শতবর্ষী প্রায় ৫০টি বিভিন্ন গাছ, ১টি কোয়াটারসহ বিভিন্ন স্থাপনা ছিল।

জানা যায়, বাংলাদেশ শিল্প প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ আদেশ ১৯৭২ রাস্ট্রপতির আদেশ নম্বর ২৭,১৯৭২ এর অনুচ্ছেদ ১০ অনুসারে বাংলাদেশ জুট মিল কর্পোরেশনের (বিজেএমসি) প্রতিষ্ঠিত হয়। পরে স্থানীয় প্রান্তিক পর্যায়ে পাট চাষীদের পাটের ন্যায্য মূল্য নিশ্চিত করা, পাটের মূল্য স্থিতিশীল রাখা এবং বিদেশে পাটশিল্পের প্রসার ও মানোন্নয়নের লক্ষ্যে পাট ক্রয় ও বিপণের সাথে জড়িত বাংলাদেশ জুট মার্কেটিং কর্পোরেশন সহ পাঁচটি প্রতিষ্ঠানকে ১৯৮৫ সালের ১ লা জুলাই ৩০ নং অধ্যাদেশ মুলে একীভূত করে সরকার বাংলাদেশ জুট কর্পোরেশন (বিজেসি) গঠন করে। পাট উৎপাদিত এলাকা কৃষকদের ন্যায্য মূল্য নিশ্চিত করতে উল্লাপাড়ায় জুট মিলস কর্পোরেশনের (পাটের গোডাউন) নামে পাট ক্রয় কেন্দ্রটি ও গোডাউন চালু করা হয়।

রুদ্ধপুর জোন অফিস আরো জানান, গত ২০১১ সালে পাট ব্যবসা করার জন্য মৃত মরিন্দ নাথ দাসের ছেলে শ্রী প্রশান্ত কুমার দাস ৮৪ শতক জায়গা জুট মিলস কর্পোরেশনের থেকে ১ বছর মেয়াদী লিজ নেন।

মঙ্গলবার (১৪ ফেব্রুয়ারী) সকালে সরজমিনে গেলে স্থানীয় স্থানীয় রনি রায়, কৃষ্ণ, তাপস ও শংকর দাস অভিযোগ করে বলেন, দীর্ঘদিন ধরে অবৈধভাবে প্রভাব খাটিয়ে জুট মিলস কর্পোরেশনের (পাটের গোডাউন) জায়গা দখল করে বাড়ী-ঘর, দোকানপাট নির্মাণ, শতবর্ষী বিভিন্ন গাছপালা, কোয়াটারের আসবাবপত্র চুরি করে বিক্রিসহ সরকারী টাকা আত্মসাত করেছেন প্রশান্ত কুমার দাস। তার ভয়ে কেউ কথা বলতে সাহস পায় না। জুট মিলস কর্পোরেশনের (পাটের গোডাউন) পরিত্যক্ত বিশালাকারের এই সম্পত্তির উপরে মার্কেট নির্মাণ করে ১৯টি দোকান-ঘর, ৫টি বাসা বাড়ীসহ নিজের বাড়ী নির্মাণ করে তিনি এখানে বসবাস করছেন। এব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে স্থানীয়রা।

এক প্রশ্নের জবাবে প্রশান্ত কুমার দাস ভালুকা ডটকমকে বলেন, গত ২০১১ সালে ৩ বছরের জন্য সরকারের নিকট থেকে এই জায়গা লিজ নিয়েছিলাম। এখানে যে সকল স্থাপনা ছিলো সব চুরি হয়ে গেছে। পাটের গোডাউনের জায়গা ১ বছরের জন্য নিজ নিয়ে ১২ বছর যাবত অবৈধভাবে বসবাস সহ নানা স্থাপনা তৈরি করে ভাড়া আদায়ের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি এ বিষয়ে কোন জবাব না দিয়ে বলেন আমি আবারো লিজ নেওয়ার জন্য চেষ্টা করছি।

জুট মিলস কর্পোরেশনের উত্তরাঞ্চল (রংপুর) রুদ্ধপুর জোনের ডিজিএম মালাজি রহমান বলেন, বিষয়টি আমি জানতে পেরেছি। সরজমিনে গিয়ে ভিডিও, ছবি সহ সকল ডকুমেট তৈরী করে ঢাকায় পাঠিয়েছি। এ ব্যাপারে সরকারের শীর্ষ পর্যায় থেকে যে ধরনের নির্দেশনা আসবে তা বাস্তবায়ন করা হবে বলে তিনি জানান।#   





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

জীবন যাত্রা বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৮৯০৭ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই