তারিখ : ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, সোমবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

কে হচ্ছেন নওগাঁ-৬ আসনে নৌকার মাঝি

আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কে হচ্ছেন নওগাঁ-৬ আসনে নৌকার মাঝি?
[ভালুকা ডট কম : ২০ নভেম্বর]
নওগাঁ জেলার আত্রাই ও রাণীনগর উপজেলা নিয়ে গঠিত নওগাঁ-৬ আসনটি। এই আসনে বিগত জোট সরকারের আমলে প্রথমে সর্বহারা ও পরে জেএমবি নামক দুটি সন্ত্রাসী দলের দ্বারা দিনে-দুপুরে জবাই হয়েছে শতাধিক মানুষ। সেই সময় সন্ধ্যার পর সাধারণ মানুষরা ঘরের বাহিরে বের হতে পারেনি। তখন এই অঞ্চলটি রক্তাক্ত জনপদ হিসেবে পরিচিতি পায়।

এরপর বর্তমান সরকার ২০০৯সালে ক্ষমতায় এলে এই অঞ্চলে বইতে শুরু করে শান্তির সুবাতাস। একসময়ের বিএনপির ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত ছিলো নওগাঁ-৬ আসনটি। কিন্তু ২০০৮সালের নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী বীরমুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার হোসেন বুলুকে পরাজিত করে প্রয়াত সাংসদ ইসরাফিল আলমের এমপি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে আসনটি আ’লীগের দখলে রয়েছে। ২০২০সালে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সাংসদ ইসরাফিল আলমের মৃত্যু হলে উপ-নির্বাচনে ৩৪জন মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে মো. আনোয়ার হোসেন (হেলাল) নৌকা প্রতিক পেয়ে বিএনপির শেখ মো. রেজাউল ইসলাম রেজুকে পরাজিত করে এমপি নির্বাচিত হোন।

আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কে হচ্ছেন এই আসনের নৌকার মাঝি এই বিষয়টি বর্তমানে এই আসনের প্রতিটি মানুষের আলোচনার প্রধান বিষয়। ইতিমধ্যেই নওগাঁ-৬ আসন থেকে সরকার দলীয় মনোনয়ন ফরম তুলেছেন ১০জন মনোনয়ন প্রত্যাশী। এই সংখ্যাটি ডজনকখানেকও হতে পারে। তবে নৌকার প্রাপ্তির ক্ষেত্রে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর যে শর্তগুলো অবতারনা করেছেন সেই শর্তগুলো অনুসারে কে যোগ্য হিসেবে নৌকার মাঝি হচ্ছেন সেই চমক দেখার অপেক্ষার রয়েছেন এই আসনের বাসিন্দারা। অপরদিকে ভোটারদের চাওয়া এই গুরুত্বপূর্ন আসনটিতে তারা একজন যোগ্য প্রার্থীকে নৌকার মাঝি হিসেবে দেখতে চান। এছাড়া একটি শান্তিপূর্ন সুষ্ঠ ও উৎসবমুখর পরিবেশে নিজের ভোটটি নিজে ভোট কেন্দ্রে গিয়ে প্রয়োগ করার পর বাড়িতে ফিরে আসতে পারেন এমন একটি ভোটের পরিবেশ দাবী ভোটারদের।

এই আসন থেকে নৌকার মাঝি হওয়ার জন্য রাণীনগর উপজেলা থেকে দলীয় মনোনয়ন ফরম তুলেছেন বর্তমান এমপি মো. আনোয়ার হোসেন (হেলাল), সরকারের সাবেক অতিরিক্ত সচিব ড. ইউনুস আলী, বীরমুক্তিযোদ্ধা নওশের আলী, সাবেক এমপি ইসরাফিলের পত্নী সাবেক ব্যাংকার সুলতানা পারভীন বিউটি, অধ্যক্ষ জিএম মাসুদ রানা জুয়েল, আব্দুল আরিফ রাঙ্গা, আত্রাই উপজেলা থেকে ড. জাহেদুল হক জাহিদ, এ্যাড. ওমর ফারুক সুমন, প্রফেসর ড. মো. মতিউর রহমান ও নাহিদ ইসলাম বিপ্লব। এছাড়াও আরো অনেকেই মনোনয়ন ফরম তুলতে পারেন বলে জানা গেছে।

এই আসনটি এক সময়ের বিএনপির ঘাটি হিসেবে পরিচিত ছিলো। আসন্ন নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ না করায় ফুরফুরা মেজাজে আছেন আ’লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা। শক্তিশালী প্রতিপক্ষ বিএনপি নির্বাচনে না আসায় নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশীরা মনে করছেন যিনি নৌকা প্রতিক পাবেন তিনিই এমপি নির্বাচিত হবেন। তবে সরকার দলীয় প্রার্থী যদি অন্যান্য মনোনয়ন প্রত্যাশীদের পছন্দমাফিক না হয় তাহলে তাদের মধ্যে থেকে যে কেউ স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারেন বলে আশঙ্কা করছেন অনেকেই।   

নওগাঁ-৬ আসনের আত্রাই উপজেলায় ভোট কেন্দ্র ৬০টি। এই উপজেলাতে পুরুষ ভোটার ৮৪হাজার ৮শত ১৮জন ও মহিলা ভোটার ৮২হাজার ৭শত ৯৫জন আর হিজড়া ভোটার ২জন। অপরদিকে রাণীনগর উপজেলায় ভোট কেন্দ্র ৫৪টি। এই উপজেলাতে পুরুষ ভোটার ৮০হাজার ৪শত ৯৮জন ও মহিলা ভোটার ৭৯হাজার ১শত ২২জন।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অন্যান্য বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৮৯০৫ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই