তারিখ : ২৪ মে ২০১৯, শুক্রবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

সান্তাহারে রেলওয়ের ওয়াগন পানির দামে নিলাম

সান্তাহারে রেলওয়ের ওয়াগন পানির দামে নিলাম
[ভালুকা ডট কম : ১৮ জানুয়ারী]
বগুড়ার সান্তাহার রেলওয়ে জংশন ষ্টেশনের ইয়ার্ডে থাকা মিটারগ্রেজ ও ব্রডগ্রেজের মোট ৭৬টি ওয়াগন পানির দামে নিলাম করাসহ দপ্তর আদেশের বাহিরে অতিরিক্ত মালামাল সরবরাহ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এসব ওয়াগন ভেঙ্গে সরবরাহের সময় রেলওয়ের দায়িত্বপ্রপ্ত ষ্টক ভেরিফাইয়ার সাহিদ হোসেন উপস্থিত থেকে মালামাল সরবরাহের কথা থাকলেও তিনিসহ সংশ্লিষ্ট রেল বিভাগের কোনো কর্মকর্তাকে দেখা যায়নি। ফলে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ইচ্ছেমতো মাপের অধিক মালামাল নিয়ে যাচ্ছে। এতে করে রেলবিভাগের লক্ষ লক্ষ টাকা রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

বিক্রয়াদেশ সূত্রে জানাযায়, সম্প্রতি রেলওয়ে পশ্চিম অঞ্চল জোনের সিওএস-পশ্চিম-রাজশাহীর নথি নং-সেল ২০১৮/০৮ ও ১০ এবং বিক্রয়াদেশ নং ২০১৮/৩৬ ও ৩৭ দরপত্রের মূলে মিটারগ্রেজের এমজি ৩৭টি এবং ব্রডগ্রেজের ৩৯ মিলে (দুই লটে) সর্বমোট ৭৬ টি ওয়াগন কেটে সরবরাহের জন্য চট্রগ্রামের পাথরঘাটার মেসার্স মঈন উদ্দীন জাভেদ ট্রেডার্সকে বাংলাদেশ রেলওয়ের রাজশাহী সরঞ্জাম নিয়ন্ত্রক (পশ্চিম) কর্তৃক সৈয়দপুর জেলা সরঞ্জাম নিয়ন্ত্রককে এ নির্দেশ দেয়া হয়। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে মিটারগ্রেজের এমজি ৩৭টির প্রতিটি ওয়াগন থেকে পৌনে ২টন এবং  ব্রডগ্রেজের ৩৯টির প্রতিটি ওয়াগন থেকে প্রায় ৫টন সরবরাহের কথা কথাকলেও তারা মাপযোগ ছাড়াই ইচ্ছে মতো অতিরিক্ত মালামাল নিয়ে যাচ্ছে।

সান্তাহার পৌর এলাকার সাবেক কাউন্সিলর আসলাম সিকদার জানান, দায়িত্বপ্রাপ্ত ডেলিভেরি কর্মকর্তা সাহিদ হোসেনের সাথে ক্রেতা বা ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান যোগসাজস করে নির্দিষ্ট মালমালের চেয়ে বিপুল পরিমান মালামাল নিয়ে যাচ্ছে। এতে করে রেলের কোটিকোটি টাকা লোপাট হয়ে যাচ্ছে। স্থানিয় মুক্তিযোদ্ধা আনছার আলী জানান, নিলামকৃত মালামালের মধ্যে ওয়াগনের শুধু প্লেট সরবরাহের কথা উল্লেখ রয়েছে। কিন্তু স্প্রিং, সোরপ্লেট,স্কেলবক্স, এক্সেলগার্ড, দরজা জমা দেয়ার কথা থাকলেও এসব মালামালগুলিও নিয়ে যাচ্ছে। এখানে দেখার কেউ নেই। এব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের জরুরী ভিত্তিতে নজর দেয়া একান্ত প্রয়োজন।
এ বিষয়ে সান্তাহার ক্যারেজ বিভাগের উর্ধ্বতন উপ-সহকারি প্রকৌশলী আনছার আলী মৃধার জানান, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে গ্যাস দিয়ে মালামাল কেটে নেয়ার জন্য মালামাল বেশি যাচ্ছে। #





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অনুসন্ধানী প্রতিবেদন বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৭৬ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই