তারিখ : ২০ নভেম্বর ২০১৯, বুধবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

নান্দাইলে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি মাসে হাতিয়ে নিচ্ছে ১২ লাখ টাকা

নান্দাইলে কেনা মিটার তবু ভাড়া নিচ্ছেন পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি,মাসে হাতিয়ে নিচ্ছে ১২ লাখ টাকা   
[ভালুকা ডট কম : ০৫ অক্টোবর]
ময়মনসিংহের নান্দাইল পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির বিরুদ্ধে মিটার ভাড়া নামে গ্রাহকদের কাছ থেকে প্রতি মাসে লাখ লাখ টাকা আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গ্রাহকরা নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ গ্রহনের সময় সমিতির কাছ থেকে উপযুক্ত মূল্য দিয়ে মিটার ক্রয় করে সংযোগ গ্রহণ করলেও প্রতি মাসে মিটার ভাড়া বাবদ তাদের ১০ টাকা করে সমিতিতে প্রদান করতে হচ্ছে।সমিতির কাছ থেকে মিটার কেনার পরেও তাদেরকে মিটারের মাসিক ভাড়া দিতে হচ্ছে এ নিয়ে গ্রাহকদের মধ্য রয়ে গেছে ধোঁয়াশা। অনেকেই এ বিষয়ে এই প্রতিবেদকের কাছে চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

সরেজমিন অনুসন্ধানে জানাগেছে, একজন গ্রাহককে পল্লী বিদ্যুতের সংযোগ নিতে হলে আবেদন করার পর মিটারের বিপরীতে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ ফি জমা দিতে হয়। অর্থাৎ গ্রাহক তার নিজের টাকা খরচ করেই মিটার গ্রহন করেন। কিন্তু পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ মাসিক বিদ্যুৎ বিলের সাথে  প্রতি মাসে ১০ টাকা করে মিটার ভাড়া হিসেবে গ্রহন করে থাকেন। গ্রাহকদের প্রশ্ন হল নিজের টাকায় মিটার ক্রয় করা পরেও কেন মিটার ভাড়া দিতে হবে?

নান্দাইল পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি সূত্রে জানাযায়, তাদের মোট গ্রাহক সংখ্যা প্রায় ১ লাখ ২০ হাজার। প্রতিটি মিটারের বিপরীতে যদি মাসে ১০ টাকা করে নেওয়া হয় তবে ১২ লাখ টাকা মাসিক ভাড়া আদায় করা হচ্ছে। এতে করে উক্ত খাতে সমিতির মাসিক আয় থাকে ১২ লাখ টাকা। অর্থাৎ পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ গ্রাহকদের দূর্বলতার সূযোগ নিয়ে অন্ধকারে রেখে প্রতি মাসে ১২ লাখ টাকা আদায় করছে।

এ বিষয়ে পল্লী বিদ্যুতের গ্রাহক শাহাজাহান, আবুল কালাম আজাদ, আজাহরুল ইসলাম হীরা সহ আরও কয়েকজন গ্রাহক জানান, পল্লী বিদ্যুতের বিলের পরিপ্রেক্ষিতে প্রতি মাসে আমরা বিল জমা দিয়ে যাচ্ছি। কিন্তু ক্রয়কৃত মিটার থেকে কেন ভাড়া নেওয়া হচ্ছে তা আমরা জানিনা। এ তো মহা নীরব জুলুম। এছাড়া বিভিন্ন সময়ে ভূতুড়ে বিল সহ আমাদেরকে নানাভাবে হয়রানি করে থাকে এই পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির লোকেরা। তারা বাড়ি বাড়ি গিয়ে মিটার রিডিং না নিয়ে মনগড়া বিদ্যুৎ বিল তৈরী সহ বিদ্যুৎ লাইন সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়।

নান্দাইল পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ডিজিএম উত্তম কুমার সাহা বলেন, গ্রাহকদের কাছ থেকে মিটার প্রতি মাসে ১০ টাকা ভাড়া গ্রহনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কিশোরগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি। এ বিষয়ে আমার কিছু বলার নেই। আজীব এই মিটার ভাড়া নেওয়া হবে।

বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন নান্দাইল উপজেলা শাখার সভাপতি এডভোকেট মকবুল হোসেন বলেন, ক্রয়কৃত মিটার থেকে ভাড়া আদায় করার অযৌক্তিক। তিনি অবিলম্বে মিটার ভাড়া বাদ দেওয়ার জন্য পল্লী বিদ্যুত সমিতির দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অনুসন্ধানী প্রতিবেদন বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২২৩ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই