তারিখ : ০১ এপ্রিল ২০২০, বুধবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

সাংবাদিক আরিফের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ সংবিধানিক পরিপন্থী

সাংবাদিক আরিফের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ সংবিধানিক পরিপন্থী-বাংলাদেশ ন্যাপ
[ভালুকা ডট কম : ১৫ মার্চ]
কুড়িগ্রামের সাংবাদিক ও বাংলা ট্রিবিউনের জেলা প্রতিনিধি আরিফুল ইসলামকে মধ্যরাতে ঘর থেকে তুলে নিয়ে মোবাইল কোর্টে বিচার করে কারাদন্ড দেয়ার পুরো ঘটনাকেই বেআইনি ও সংবিধান পরিপন্থি হিসাবে আখ্যায়িত করে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ তার নি:শর্ত মুক্তি ও তার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত সকল মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে।

রবিবার (১৫ মার্চ) গণমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে পার্টির চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গানি ও মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া এ দাবি জানান।তারা বলেন, সাংবাদিক আরিফের বিরুদ্ধে এমন পদক্ষেপ আইনের যেমন যথেচ্ছ অপপ্রয়োগ ঠিক তেমনই সংবিধানিক পরিপন্থী এবং গণমাধ্যমের স্বাধীনতার প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শনের নামান্তর। এমন ন্যক্কারজনক ঘটনার দ্রুত তদন্ত এবং জড়িতদের বিচার ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা না গেলে প্রশাসন তথা সরকারের ওপরই জনগণ আস্থা হারিয়ে ফেলবে।গণমাধ্যমে প্রকাশিত এ সংক্রান্ত সংবাদের সূত্র ধরে এমন ঘটনা সরকার ও প্রশাসনের ভাবমূর্তিকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে।

নেতৃদ্বয় বলেন, দেশে মোবাইল কোর্ট পরিচালনার জন্য সুনির্দিষ্ট আইন আছে, দেশের সর্বোচ্চ আদালতের নির্দেশনাও রয়েছে। সে অনুযায়ী রাতে কোনো নাগরিককে ঘর থেকে তুলে এনে মোবাইল কোর্টের কার্যক্রম পরিচালনা করাটা সম্পূর্ণ অবৈধ ও আইন এবং দেশের সর্বোচ্চ আদালতের নির্দেশানর অবমাননা। ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে মধ্যরাতে ‘দরজা ভেঙে’ একজন নাগরিককে তুলে আনা এবং পরে মোবাইল কোর্ট বসিয়ে কারাদন্ড দেয়াটা অবশ্যই আইনের শাসনকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে। এ ঘটনার মধ্য দিয়ে প্রমানিত হয়েছে ঘটনাটির পেছনে যে অপরাধ দমন নয় বরং অন্য কোনো উদ্দেশ্য কাজ করেছে।

তারা বলেন, কোনোভাবেই মধ্যরাতে এই ধরনের অভিযান আইনসম্মত নয়। অবশ্যই টাস্কফোর্সকে সকাল না হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে, তাই বিধান রয়েছে। মধ্যরাতে অভিযান ও সাজা দেওয়ার বিষয়টি প্রশাসনের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করেছে। এ ধরনের কর্মকান্ড মাঠপর্যায়ে সরকার ও প্রশাসনের ওপর জনগণের আস্থা কমায় এবং পরিস্থিতি বিরূপ করে তোলে। দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রতিবেদন করার জন্যই যদি একজন সাংবাদিককে এমন বেআইনিভাবে তুলে এনে বিচার করা হয়ে থাকে, তবে সেটা রাষ্ট্র ও সরকারের জন্য এক অশনি সঙ্কেত। যেখানে দেশের প্রধানমন্ত্রী দুর্নীতির বিরুদ্ধে শূন্য সহনশীলতার অঙ্গীকার করেছেন, সেখানে প্রশাসনের কিছু কর্মকর্তার এহেন আচরণ গুরুতর অসদাচরণ সরকারকেই চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেয়ার শামিল।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

মিডিয়া বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২৩৭ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই