তারিখ : ৩১ মে ২০২৪, শুক্রবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

রাণীনগরে বিপদজনক বৈদ্যুতিক সংযোগ

রাণীনগরে উন্মুক্ত স্থানে বিপদজনক বৈদ্যুতিক সংযোগ,নজর নেই কর্তৃপক্ষের
[ভালুকা ডট কম : ০৬ এপ্রিল]
নওগাঁর রাণীনগরে মিরাট ইউনিয়নের ২নং স্লুইস গেইট সংলগ্ন স্থানে উন্মুক্ত অবস্থায় রাখা হয়েছে বৈদ্যুতিক সংযোগ। আর বৈদ্যুতিক পোল না দিয়ে গাছের মাধ্যমে টানা হয়েছে বৈদ্যুতিক তার। বছরের পর বছর বিপদজনক এমন অবস্থায় যে কোন সময়ে বড় ধরণের দুর্ঘটনা ঘটার আশঙ্কা করছে স্থানীয়রা। ইতিমধ্যেই একাধিক বৈদ্যুতিক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছে অনেকেই। তবুও নজর নেই কর্তৃপক্ষের।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় যে, মিরাট ইউনিয়নের অধিকাংশ অঞ্চলে বৈদ্যুতিক সেবা দিয়ে আসছে নেসকো (পিডিবি)। বর্তমানে ওই এলাকাটি পুকুরের জন্য বিখ্যাত হওয়ায় প্রতিটি পুুকুরেই পানি সেচ ও আলোর জন্য বৈদ্যুতিক সংযোগ প্রদান করা হয়েছে। সেই সংযোগ প্রদান করা হয়েছে ২নং স্লুইস গেইট সংলগ্ন স্থানে স্থাপন করা ট্রান্সফরমার থেকে। যেখানে মিটারগুলো রাখা হয়েছে মাটি থেকে একটু উপরে হাতের নাগালের মধ্যে। কিছু প্রধান তারগুলো ছিড়ে উন্মুক্ত অবস্থায় পড়ে আছে মাটিতে। এছাড়া অনেকগুলো প্রধান তারগুলোর মাথায় স্কচটেপ লাগিয়ে রাখা হয়েছে। যে তারগুলো মনের অজান্তে যে কেউ স্পর্শ করলেই বৈদ্যুতিক শক লেগে বড় ধরণের দুর্ঘটনার শিকার হতে পারে। এছাড়া ওই এলাকায় শত শত বৈদ্যুতিক সংযোগের ডপ তারগুলো প্রধান রাস্তার পাশ দিয়ে নিরাপদ দূরত্ব বজায় না রেখে বছরের পর বছর এলোমোলো ভাবে ঝুলিয়ে টানা হয়েছে। যার ফলে ঝড় কিংবা বড় ধরণের প্রাকৃতিক দুর্যোগে তারগুলো ছিড়ে বড় ধরণের দুর্ঘটনা ঘটার আশঙ্কা বিরাজ করছে।   

মিরাট দীঘিরপাড় এলাকার বাসিন্দা মোবারক হোসেন, ইকবাল হোসাইনসহ অনেকেই জানান যে এই পুরো মিরাট অঞ্চলটিই পিডিবির (নেসকো) বৈদ্যুতিক তারের জন্য বিপদজনক অঞ্চল হিসেবে পরিণত হয়েছে। পোল না দিয়ে রাস্তার পাশে থাকা গাছ দিয়ে শতাধিক বৈদ্যুতিক তার নিরাপদ দূরত্ব বজায় না রেখেই টানা হয়েছে। জনসাধারণদের চলাচলের  রাস্তার পাশে ট্রান্সফরমার থেকে শত শত সংযোগ লাইন এমন ভাবে প্রদান করা হয়েছে যে কোন মুহূর্তে একটি শিশু ওই সংযোগ তার হাত দিয়ে স্পর্শ করতে পারবে। এছাড়া মিটারগুলো নিরাপদ দূরত্ব বজায় না রেখেই স্থাপন করা হয়েছে। তাই দুর্বৃত্তরা যে কোন সময় এমন মূল্যবান বৈদ্যুতিক সরঞ্জামগুলো লুট করতে পারে।

আতাইকুলা গ্রামের বাসিন্দা হযরত আলী জানান বাঁধের উপরের রাস্তা দিয়ে চলাচল করতে অনেক ভয় লাগে। গাছে ঝুলে থাকা বৈদ্যুতিক তারগুলো কখন যেন ছিঁড়ে ছিটকে এসে দুর্ঘটনা ঘটে। সব মিলিয়ে এই অঞ্চলের বৈদ্যুতিক তার, মিটার কিংবা অন্যান্য সরঞ্জামগুলো রাখা হয়েছে হ-য-ব-র-ল অবস্থায় যা যে কোন সময় বড় ধরণের বৈদ্যুতিক দুর্ঘটনা ঘটার রসদ হিসেবে কাজ করছে। আমরা দ্রুতই এমন বিপদজনক পরিবেশ থেকে মুক্ত হয়ে নিরাপদ একটি পরিবেশে বসবাস করতে চাই।

নেসকো নওগাঁ দক্ষিণ অঞ্চলের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মিলন মাহমুদ মোবাইল ফোনে জানান যে, তিনি বিষয়টি জানতেন না। তিনি দ্রুতই সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির মাধ্যমে স্থানটি পরিদর্শন সাপেক্ষে কিভাবে বৈদ্যুতিক সংযোগগুলো নিরাপদ করা যায় সেই বিষয়ে পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

ভালুকার বাইরে বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৯৩৯০ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই