তারিখ : ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, বুধবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

হেঁটে হেঁটে গন্তব্য যাচ্ছেন কর্মমূখী মানুষ

ঢাকা-ময়মনসিংহ ও ঢাকা-টাঙ্গাইল সড়ক মহাসড়ক ব্যাটারী চালিত অটো রিক্সা, সিএনজি এবং ইঞ্জিন চালিত ভ্যান গাড়ীর দখলে, হেঁটে হেঁটে গন্তব্য যাচ্ছেন কর্মমূখী মানুষ
[ভালুকা ডট কম : ২৬ জুলাই]
কঠোর লকডাউনের তৃতীয় দিনে ঢাকা-ময়মনসিংহ ও ঢাকা-টাঙ্গাইল সড়ক মহাসড়ক ব্যাটারী চালিত অটো রিক্সা, সিএনজি এবং ইঞ্জিন চালিত ভ্যান গাড়ীর দখলে রয়েছে। ওইসব গাড়ীগুলোকে মহাসড়কের এক চেকপোস্ট থেকে অন্য চেকপোস্ট পর্যন্ত যাত্রী বহন করতে দেখা গেছে। সকাল থেকেই মহাসড়কে ঈদ ফেরত কর্মমূখী মানুষ তাদের গন্তব্য টঙ্গী ও ঢাকা প্রবেশ করেছে। গণ পরিবহন না থাকায় যেমন দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে, তেমনি তিনগুণ ভাড়া গুনতে হচ্ছে তাদের। ২০ টাকার ভাড়া নিচ্ছে ৬০ টাকা। প্রয়োজন ছাড়া কেউ ঘর থেকে বের হচ্ছে না। যাদের একান্তই প্রয়োজন তারা পায়ে হেঁটে গন্তব্য রওনা দিচ্ছেন।

ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার ডালেশ^র গ্রাম থেকে নাতি এমরানকে সাথে নিয়ে ঢাকার সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য যাচ্ছেন আব্দুল হারেজ (৬০)। মহাসড়কের রাজেন্দ্রপুর চৌরাস্তায় কথা হলে তিনি বলেন, সাথে চিকিৎসার ব্যবস্থা পত্র নিয়ে আসছি। সেটা দেখানোর পরও পুলিশ আমাকে নামিয়ে দিয়েছে। অসুস্থ শরীর নিয়ে বুড়া বয়সে এতো কষ্ট হবে জানলে চিকিৎসার জন্য বাড়ি থেকে বের হতাম না।

নেত্রকোণা সদরের আলী হোসেন তেজগাঁও এলাকার ইমামী কসেমেটিক কারখানায় চাকুরী করেন। তিনি জানান, নেত্রকোণা থেকে গাজীপুর সদর উপজেলার হোতপাড়া এলাকা পর্যন্ত বেশ কয়েখবার গাড়ী বদলেছেন। প্রতিটি চেকেপোস্ট পর্যন্ত ওইসব গাড়ী চালাচলের সীমানা। একটি চেকপোস্ট পার হয়ে গাড়ীতে উঠে আরেকটি চেকপোস্ট পর্যন্ত যেয়ে আবার গাড়ী বদলান। এভাবেই তিনি ঢাকার উদ্দেশে ছুটে চলেছেন।

ময়মনসিংহের কতোয়ালী থানার মুজিবুর রহমান সাভারে সুইপারের কাজ করেন। তিনি রোববার সকাল ১০টার দিকে বাড়ি থেকে বের হয়ে দুপুর পৌণে ১টার দিকে রাজেন্দ্রপুর পৌঁছান। একই এলাকার নাজনীন ইসলাম কোলে দুই বছরের কন্যা শিশু ও দুই পুত্র সন্তানকে সাথে নিয়ে পায়ে হেঁটে পথ চলছেন। তিনি বলেন, সড়কে হালকা পরিবহন থাকলেও সংখ্যায় কম। কেউ গাড়ীতে উঠতে পারেন আবার কেউ গাড়ী পান না।

জয়দেবপুরের চান্দনা চৌরাস্তায় কথা হয় শ্রীুপরের গড়গড়িয়া মাষ্টারবাড়ী এলাকার ফয়সাল হোসেনের সাথে। তিনি চাকরি করেন টঙ্গীর বোর্ড বাজার এলাকার একটি সফটওয়্যার ফার্মে। তিনি বলেন, এ পর্যন্ত আসতে তার ১৫০ টাকা ভাড়া দিতে হয়েছে। মাঝে মধ্যে বাহন পরিবর্তন করে হাঁটতে হয়েছে। এমন দুর্ভোগে পড়তে হবে জানলে ঘর থেকে বের হতাম না। এখন ঘরে ফিরে গেলেও একই ভোগান্তি পোহাতে হবে। তাই, কষ্ট হলেও গন্ত্যব্য যেতে হবে।=শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার জহিরুল ইসলাম ঢাকার জাপানী প্রতিষ্ঠান জাইকা-তে কাজ করেন। অঅগামীকাল অফিস খোলার কথা রয়েছে। গাজীপুর সদরের রাজেন্দ্রপুর চৌরাস্তা পর্যন্ত চারটি চেকপোস্ট অতিক্রম করেছেন। প্রতিটি চেকপোস্টে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর সদস্যরা গাড়ী থেকে নামিয়ে দিচ্ছেন।

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের গাজীপুর সদর উপজেলার হোতাপাড়া এলাকায় জেলা পুলিশের চেকপোস্টে হালকা যানবাহনগুলো থামিয়ে যাত্রীদের নামিয়ে দেওয়া হচ্ছে। চেকপোস্ট পার হয়ে আবার কয়েকটি হালকা যানবাহনের চড়ে পরবর্তী স্ট্যান্ড গাজীপুর মহানগর পুলিশের চেকপোস্ট রাজেন্দ্রপুর চৌরাস্তা পর্যন্ত যায়। চেকপোস্টের আগে গাড়ী থেকে নেমে সেই চেকপোস্ট পার হয়ে আবার পিকাপ ভ্যান, ইঞ্জিনচালিত ভ্যানে চড়ে গন্তব্যের দিকে ছুটতে দেখা গেছে।

গাজীপুর মহানগর পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের উপ কমিশনার (ডিসি) আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, সড়কের কোথঅও পণ্যবাহী এবং অনুমোদিত যানবাহন ছাড়া কোনো গাড়ী চলাচল করতে দেয়া হচ্ছে না। যেসব যাত্রীবাহী হালকা যান পাওয়া যাচ্ছে সেগুলো থেকে যাত্রী নামিয়ে দেওয়া হচ্ছে।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

ভালুকার বাইরে বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১৩১৯ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই