তারিখ : ২৮ নভেম্বর ২০২২, সোমবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

এনামুল হক বাবুলের মহাত্মাগান্ধী পদক লাভ

সাংগঠনিক দক্ষতায় ও সাংবাদিকতায় এনামুল হক বাবুলের মহাত্মাগান্ধী পদক লাভ
[ভালুকা ডট কম : ১৫ সেপ্টেম্বর]
বাল্যকাল থেকে সংবাদ পত্রের পাতায় চোখ বুলানো ছিল নিত্যদিনের অভ্যাস। একজন নিয়মিত পাঠক হিসাবে সংবাদপত্রকে তাঁর জীবনের অপরিহার্য অঙ্গ বলে দাবী করেন। পত্রিকার পাঠক প্রিয়তা ও ভালোবাসা থেকেই লেখা-লেখির অভ্যাস গড়ে তুলেছেন। যিনি মানব কল্যাণের জন্য মানবাধিকার নিয়ে কথা বলতেন। বর্তমানে তিনি বৃহত্তর ময়মনসিংহের একজন সিনিয়র সাংবাদিক, একজন মানবাধিকার সংগঠক ও ময়মনসিংহের ঐতিহ্যবাহী নান্দাইল প্রেসক্লাবের নব-নির্বাচিত সভাপতি। পূর্ণ নাম মোহাম্মদ এনামুল হক বাবুল। তবে সিনিয়র সাংবাদিক এনামুল হক বাবুল নামে সমাজে পরিচিত। বর্তমানে তাঁর বয়স ৫৯ বছর পেরিয়ে।

তিনি একজন শিক্ষক পরিবারের সন্তান। বাবা মরহুম টি.আই.এম আজিজুল হক নান্দাইল রোড উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা প্রধান শিক্ষক ছিলেন। পরিবারের ১১ ভাই-বোনের মধ্যে সাংবাদিক এনামুল হক বাবুল বড় সন্তান। বর্তমানে তাঁর দুই কন্যা ও এক পুত্র সন্তান রয়েছে। পরিবারের সকলেই শিক্ষিত ও সরকারি-বেসরকারি চাকুরীজীবি। তবে এনামুল হক বাবুল ৪৪ বছরের সাংবাদিকতা পেশায় তিনি কোয়ার্টার সেঞ্চুরি পদক লাভ করেছেন। পাশাপাশি সাংগঠনিক দক্ষতায় ও সমাজ সেবায় অর্ধ শতাধিক সম্মাননা স্মারক ও পুরষ্কার লাভ করেন। বর্তমানে তিনি ‘ভারত-বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশীপ এ্যাওয়ার্ড-২০২২’ এ- সাংবাদিকতা ও সমাজ সেবায় মহাত্মাগান্ধী পদক লাভ করেন। যা সম্প্রতিকালে ভারত-বাংলাদেশের কূটনীতিক সম্পর্কের ৫০ বছর উপলক্ষ্যে বেঙ্গল এডুকেশন ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন কলকাতার উদ্যোগে ও শ্রুতি বৃত্ত সংগঠনের পক্ষ থেকে মহাত্মা গান্ধী গোল্ডেন এ্যাওয়ার্ড-২০২২ পদক এর আয়োজন করে। এতে বাংলাদেশের বেশ কয়েকজন গূণী ব্যক্তি ও সাংবাদিককে সাংগঠনিক দক্ষতায়, সমাজ সেবা ও সাংবাদিকতায় এই পদক দেওয়া হয়। তারঁ মধ্যে সিনিয়র সাংবাদিক এনামুল হক বাবুল এ পদক প্রাপ্ত হন।

এছাড়া ১৯৮৮ইং সনে সাংবাদিকতায় একজন তরুন কলম সৈনিক হিসাবে তিনি “তোফাজ্জ্বল হোসেন মানিক মিয়া পদক” প্রাপ্ত হয়েছেন। তৎকালীন সময়ে বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের মাননীয় স্পিকার শামসুল হুদা চৌধুরীর হাত থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে দেশের সেরা তিনজন ব্যক্তি যথাক্রমে প্রখ্যাত সাংবাদিক মোনাজাত উদ্দিন, বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি বাসাস কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি শফি উদ্দিন আহম্মদ ও তরুন সাংবাদিক হিসাবে এনামুল হক বাবুল পদক প্রাপ্ত হয়েছেন।

জানাগেছে, সাংবাদিক এনামুল হক বাবুল ১৯৭৯ইং সনে ‘নয়া বার্তা’ নামে এক সাপ্তাহিক পত্রিকার মাধ্যমে নবীন কলম সৈনিক হিসাবে যাত্রা শুরু করেন। স্বাধীনতা উত্তর নান্দাইলের প্রথম কলম সৈনিক, নান্দাইল রোড উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রবীণ শিক্ষক (ইংরেজী) ও নান্দাইল প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মরহুম মোশারফ হোসেনের হাত ধরেই সাংবাদিক এনামুল হক বাবুল সাংবাদিকতার সিঁড়িতে পা রাখেন। পরবর্তীতে ১৯৮০ইং সনে খুলনা থেকে প্রকাশিত জাতীয় দৈনিক অনিবার্ণের নান্দাইল প্রতিনিধি হিসাবে কাজ শুরু করেন। অতি অল্প সময়ে সাংবাদিকতায় নিজেকে একটি স্থানে দাঁড় করান। এর পরপরই তিনি ময়মনসিংহ থেকে প্রকাশিত দৈনিক জাহান পত্রিকার সাব-এডিটর হিসাবে কাজ করেন। পরবর্তীতে ১৯৮২ইং সনে জাতীয় দৈনিক বাংলার বাণী‘র নান্দাইল প্রতিনিধি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। এসময় তাঁর সাংবাদিকতার শিক্ষাগুরু ‘ডেইলী স্টার‘ ইংরেজী পত্রিকার নান্দাইল প্রতিনিধি সাংবাদিক মোশাররফ হোসেনকে নিয়ে ১৯৮২ইং সনের ৭ই মার্চ ‘নান্দাইল প্রেসক্লাব‘ নামে একটি সাংবাদিক সংগঠন/ক্লাব গঠন করেন। এতে সাংবাদিক মোশাররফ হোসেন প্রেসক্লাবের সভাপতি ও সাংবাদিক এনামুল হক বাবুল সাধারন সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। এতে একাধারে ৪০ বছর পর্যন্ত ১৫ বার এনামুল হক বাবুল সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত হন এবং ৪১ বছরে এসে তিনি নান্দাইল প্রেসক্লাবের সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন। শুধু তাই নয় উক্ত সংগঠনের প্রাতিষ্ঠানিক উন্নয়ন দৃঢ়। বর্তমানে উক্ত প্রেসক্লাবটি এক ঝাঁক প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার কলম সৈনিক নিয়ে নিজস্ব জায়গায় দ্বিতল পাকা ভবনে দাড়িয়ে আছে। পরবর্তীতে ১৯৮৩ইং সনে কেন্দ্রীয় সাংবাদিক সংগঠন ‘বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি (বাসাস)এর কার্যনির্বাহী সদস্য হয়েছেন। পরে তিনি বাসাস কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সমাজ কল্যাণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন এবং পরে অসামান্য অবদানের জন্য তিনি বাসাস এর কেন্দ্রীয় ‘সাংগঠনিক সম্পাদক‘ হিসাবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। বর্তমানে তিনি নান্দাইল উপজেলার জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘জিএসএননিউজ২৪ডটকম‘ এর সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন।

সাংবাদিকতার পাশাপাশি তিনি ১৯৮৭ সনে বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন (বি.এইচ.আর.সি) নামে মানবাধিকার সংগঠনের সাথে যুক্ত হয়ে একজন মানবাধিকার সংগঠক হিসাবে বেশ সুনাম অর্জন করেছেন। এছাড়া তিনি নান্দাইল উপজেলা বিআরডিবি‘র নির্বাচিত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন, নান্দাইল রোড উচ্চ বিদ্যালয়ের ৩ বারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান, ৬বার নির্বাচিত অভিভাবক সদস্য সহ একাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, মসজিদ-মাদ্রাসা ও বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথে সরাসরি জড়িত থেকে সুনামের সহিত দায়িত্ব পালন করছেন। তাঁর এ সুস্থধারার চিন্তাশক্তি ও পরিশ্রমের ফলে সাংবাদিকতায়, সমাজ সেবায় ও সাংগঠনিক দক্ষতায় তিনি ২৫টিরও বেশি সম্মাননা পদক ও অর্ধ শতাধিক সম্মাননা স্মারক ও পুরষ্কার লাভ করেন।

এ বিষয়ে সিনিয়র সাংবাদিক মোহাম্মদ এনামুল হক বাবুল বলেন, মানবের মাঝে বেঁেচ থাকার জন্য আমি সবসময় চেষ্টা করি। ইচ্ছাশক্তি ও পরিশ্রম কখনও কাউকে সফলতার সিঁড়ি থেকে নামতে দেয় না। সফলতার শীর্ষ সোপান যেন সেই পথিকের জন্য সবসময় অপেক্ষমান।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

ব্যাক্তিত্ব বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৫৩১ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই