তারিখ : ২৪ নভেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার

সংবাদ শিরোনাম


বিস্তারিত বিষয়

করোণা ভাইরাস প্রতিরোধে অবরুদ্ধ রায়গঞ্জ,খাদ্য সংকট

করোণা ভাইরাস প্রতিরোধে অবরুদ্ধ রায়গঞ্জ,সরকারি সহায়তার পরও অনেক পরিবার খাদ্য সংকটে
[ভালুকা ডট কম : ১১ এপ্রিল]
করোণা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে অধিকাংশ দোকানপাট ও কল কারখানা বন্ধ থাকায় কার্যতঃ অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে রায়গঞ্জ। ফলে চাউল কল, জুট প্রেস, ক্ষুদ্র কল কারখানা, হোটেল, মিষ্টির দোকান, চায়ের দোকান,  বিভিন্ন বিপণী বিতানে কর্মরত কর্মচারী ও রিক্সাভ্যান চালকসহ কর্মহীন হয়ে পড়েছে এলাকার প্রায় অর্ধলক্ষ কর্মজীবি মানুষ। সরেজমিন অনুসন্ধানে এলাকার জনপ্রতিনিধি, এনজিওকর্মী ও উপজেলার ৯ ইউনিয়ন পরিষদের সচিবগণ এতথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এসব কর্মহীন খাদ্য সংকটে পতিত পরিবারের মাঝে সরকারি সহায়তা পেয়েছে মাত্র ৪ হাজার পরিবার। সিংহভাগ কর্মহীন পরিবার এখনো চরম খাদ্য সংকটে রয়েছে। ইউনিয়ন ওয়ারী এদের সংখ্যা যথাক্রমে ধামাইনগর ইউনিয়নে মোট ২৪৭৫ জন। এদের মধ্যে রিক্সাভ্যান চালক ৯৫০, ভিক্ষুক  ২৩০, দিনমুজুর ৮১০, তাঁত শ্রমিক ২৫,ও নাপিত মুচি ২৮০ জন। সোনাখাড়া ইউনিয়নে মোট ৩৩৪২ জন।  এদের মধ্যে রিক্সাভ্যান চালক ১১৭০, ভিক্ষুক  ২০৬, দিনমুজুর ১৫৭০, তাঁত শ্রমিক ২০০ ও নাপিত মুচি ১৯৬ জন। ধুবিল ইউনিয়নে মোট ২৯৭৯ জন। এদের মধ্যে রিক্সাভ্যান চালক ৬৮০, ভিক্ষুক  ১১২, দিনমুজুর ১৪০৭, তাঁত শ্রমিক ৬০৫ ও নাপিত মুচি ১৭৫ জন। ঘুরকা ইউনিয়নে মোট ৩২৬৫ জন।  এদের মধ্যে রিক্সাভ্যান চালক ১২০৪, ভিক্ষুক ১৮৫, দিনমুজুর ১১০৫, তাঁত শ্রমিক ৪৬০ ও নাপিত মুচি ৩১১ জন। চান্দাইকোণা ইউনিয়নে মোট ৫২৭৭ জন।  এদের মধ্যে রিক্সাভ্যান চালক ২০৮০, ভিক্ষুক  ২১২, দিনমুজুর ১৬৩০, তাঁত শ্রমিক ১০৭৫ ও নাপিত মুচি ২৮০ জন। ধানগড়া ইউনিয়নে মোট ৪৫৬৬ জন। এদের মধ্যে রিক্সাভ্যান চালক ১৮০২, ভিক্ষুক  ১০২, দিনমুজুর ২০৭০, তাঁত শ্রমিক ২৭৬৩ ও নাপিত মুচি ২৮৭ জন। নলকা ইউনিয়নে মোট ৪২৫২ জন।  এদের মধ্যে রিক্সাভ্যান চালক ৫৫০, ভিক্ষুক  ৪৭৮, দিনমুজুর ২৯০৪, তাঁত শ্রমিক ৮০ ও নাপিত মুচি ২৪০ জন। পাঙ্গাসী ইউনিয়নে মোট ৪৭৩৬ জন।  এদের মধ্যে রিক্সাভ্যান চালক ৬৬০, ভিক্ষুক ১১৮, দিনমুজুর ১২০৮, তাঁত শ্রমিক ২৫৬৩ ও নাপিত মুচি ১৮৭ জন। ব্রহ্মগাছা ইউনিয়নে মোট ৪৬৮৬ জন।  এদের মধ্যে রিক্সাভ্যান চালক ১৮০২, ভিক্ষুক  ১০২, দিনমুজুর ৩০৭০, তাঁত শ্রমিক ২৭৬৩ ও নাপিত মুচি ২৮৭ জন। এছ্ড়াাও মোট ৫৯৬ টি হোটেল, মিষ্টির দোকান ও চায়ের দোকানের কর্মহীন শ্রমিক, অদক্ষ শ্রমিক মোট ৪,২৩১ জন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ শামীমুর রহমান বলেন- সরকারি ‘মানবিক সহায়তা কর্মসূচি’র আওতায় দু’দফায় উপজেলার ৯ ইউনিয়নের ৪ হাজার ১০০ নিরন্ন পরিবারের মাঝে ৪১ মেঃ টন চাল বিতরণ করা হয়েছে। তবে আরো অনেক পরিবার অনুরূপ সমস্যার মধ্যে রয়েছে। তিনি এব্যাপারে ঊর্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছেন। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন-উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে স্থানীয় দানশীল ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের সহায়তায় ‘খাদ্য সহায়তা কর্মসূচির আওতায় ৯৭ টি দুঃস্থ  পরিবারের মাঝে ১০দিনের খাদ্য সংস্থানের জন্য ৫ কেজি চাল  ১ কেজি ডাল,  ১ কেজি সয়াবিন তেল ও ১ কেজি লবন প্যাকেট আকারে বিতরণ করা হয়েছে। আরো পাঁচশ’ পরিবারের মাঝে একই হারে খাদ্য উপকরণ বিতরণের ব্যবস্থা করা হয়েছে। ১০ দিন পর পর এই প্যাকেট বিতরণ অব্যাহত থাকবে।

এব্যাপারে স্থানীয় এমপি অধ্যাপক ডাঃ আব্দুল আজিজ বলেন- তার নির্বাচনী এলাকায় কেউ অনাহারে থাকবেন না। পর্যায়ক্রমে সবাইকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত মানবিক সহায়তা কর্মসূচির আওতায় খাদ্য সরবরাহ করা হবে। সামাজিক দুরত্ব বা শারিরীক দুরত্ব বজায় রাখতে বাড়ি বাড়ি খাদ্য পৌঁছে দেয়া হবে।  #



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

জীবন যাত্রা বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২৯৬ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই