তারিখ : ১৬ মে ২০২১, রবিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে ৫০গ্রামের পথচারী

রতনডারা খালের উপর সংযোগ সড়ক বিহীন ব্রিজ,জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে ৫০গ্রামের পথচারী
[ভালুকা ডট কম : ১২ এপ্রিল]
নওগাঁর রাণীনগরের ঐতিহ্যবাহী রক্তদহ বিল থেকে তৈরি হওয়া রতনডারা খাল বয়ে গেছে রাণীনগর ও পার্শ্ববর্তি আত্রাই উপজেলার মধ্যদিয়ে। এই রতনডারা খালের উপর দাঁড়িয়ে আছে সংযোগ সড়ক বিহীন একটি ব্রিজ। ব্রিজটির সংযোগ সড়ক না থাকায় স্থানীয়দের তৈরি বাঁশের চাটার সাঁকোর উপর দিয়ে প্রতিনিয়তই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পারাপার হচ্ছে প্রায় ৫০টি গ্রামের মানুষ।

জানা গেছে, উপজেলার সাহাগোলা ইউনিয়নের তারাটিয়া ছোটডাঙ্গা বাজার সংলগ্ন রতনডারা খালের উপর ৪বছর পূর্বে নির্মাণ করা হয় একটি ব্রিজ। নির্মাণের পর ব্রিজটির উভয় পাশে সংযোগ সড়ক নির্মাণ করা হয়নি। স্থানীয়রা চলাচলের জন্য ব্রিজটিতে সংযোগ সড়ক হিসেবে বাঁশের চাটার সাঁকো বানিয়ে এর উপর দিয়ে পারাপারের কাজ চালিয়ে আসছেন। এই রাস্তা দিয়ে রাণীনগর উপজেলার চাপড়া, বহলা ও আত্রাই উপজেলার উচলী কাশিমপুর, পার-কৃষ্টপুর, ঝনঝনিয়া, কালিগ্রাম, সুবর্ণকুন্ড, তারটিয়া, মির্জাপুর, মাগুড়াপাড়া, হাতিয়াপাড়া, চাপড়া, তারাটিয়া ছোটডাঙ্গা, তারাটিয়া বড়ডাঙ্গা, কয়সাসহ প্রায় ৫০টি গ্রামের হাজার হাজার মানুষ চলাচল করে। সপ্তাহে দুই দিন ভবানীপুর ও মির্জাপুর হাট বসে। এই সব গ্রামের মানুষদের হাটে চলাচল করার এটিই একমাত্র রাস্তা হওয়ায় প্রতিদিনই চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে ব্রিজটি পারাপার হতে। মানুষসহ ছোট ছোট যানবাহন বিশেষ করে ভ্যানগাড়ি চলাচল করার সময় নিচে পড়ে গিয়ে বড় ধরনের দুর্ঘটনাও ঘটেছে।

বহলা গ্রামের আরিফ হোসেন, হাকিম আলী, ঝনঝনিয়া গ্রামের গফুর প্রামানিক সহ অনেকেই বলেন, ব্রিজটির সংযোগ সড়ক না থাকায় পারাপার হতে চরম দূর্ভোগ পোহাতে হয়। বিশেষ করে সাইকেল, মোটর সাইকেল ও মাল বোঝাই ভ্যান গাড়ী ঠেলা দিয়ে পার করতে হয়। সংযোগ সড়কবিহীন সরু এই ব্রিজটি পারাপারে অনেক সময় দুর্ঘটনার শিকার হতে হয়। বিশেষ করে হাটের দিনে বিভিন্ন মালামাল হাটে নিয়ে যেতে এবং নিয়ে আসতে চরম কষ্টের শিকার হতে হয়।

সাহাগোলা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম বাবু বলেন, বিষয়টি উর্ধ্বতন মহলকে জানানো হয়েছে। কর্তৃপক্ষ জনগণের দূর্ভোগের কথা বিবেচনা করে অতিদ্রুত বিষয়টি সমাধান করবেন এমটিই প্রত্যাশা করেন তিনি।

জেলা এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী মাকসুদুল আলম বলেন, এই জনগুরুত্বপূর্ন ব্রিজটির উভয় পাশে সংযোগ রাস্তা করার জন্য একটি লিখিত আবেদন উপড় মহলে পাঠিয়েছি। সেটি অনুমোদ দিয়ে অর্থ বরাদ্দ এলেই কাজ শুরু করা হবে। এছাড়া আমিও নিজে চেষ্টা করছি যে অন্য কোন খাত থেকে অর্থ এনে এই কাজটি করার জন্য।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অনুসন্ধানী প্রতিবেদন বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১৩১০ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই