তারিখ : ২৮ মে ২০২৪, মঙ্গলবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

কালিয়াকৈরে বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকা

কালিয়াকৈরে বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকা
[ভালুকা ডট কম : ০৮ সেপ্টেম্বর]
গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলা ফুলবাড়িয়া ইউনিয়নের জাথালিয়া গ্রামে বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন। আশিকুর রহমানের অভিভাবকের আশ্বাসে ইউপি সদস্য ওই মিনারা আক্তার কে তাহার হেফাজতে নিয়ে যায়।শুক্রবার সকাল ৯টার দিকে ওই প্রেমিকের বাড়িতে  অনশন করতে থাকে।ওই প্রেমিকা হলো, উপজেলার ফুলবাড়িয়া ইউনিয়নের গোয়ালবেথ গ্রামের মাজহারুল মিয়ার মেয়ে মিনারা আক্তার (১৮)।

ভুক্তভোগী পরিবার ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ফুলবাড়িয়া ইউনিয়নের জাথালিয়া গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে আশিকুর রহমান আশিক (২১) । গত এক বছর আগে স্থানীয় আলাল সিকদার উচ্চ বিদ্যালয় পুড়োয়া ও শিক্ষার্থী স্কুলে যাওয়া আসার রাস্তায় প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল আশিক।  পরে আশিকের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।এ সুযোগে আশিক মিনারা আক্তারকে  বেড়ানোর কথা বলে বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে গিয়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে একাধিকবার দৈহিক সম্পর্ক গড়ে তুলে। মিনারা আক্তার ওই প্রেমিক আশিককে বিয়ের কথা বললে বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে পাশ কাটিয়ে চলে যান। পরে মিনারা আক্তার ওই প্রেমিকার বাড়িতে গিয়ে অবস্থান করে। এ সময় আশিকের অভিভাবকরা নির্যাতন করে বাড়ি থেকে সরানোর চেষ্টা করে। এসময় তার ডাক চিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে আসলে। পরে ওই গ্রামের মাতব্বরগণ বিষয়টি সমাধান করার আশ্বাস দিলে বাড়ি থেকে চলে আসে মিনারা আক্তার। পরে গ্রামের বিভিন্ন মাতাব্বদের কাছে বিচারের দাবি নিয়ে ঘুরতে থাকে। বিচার না পেয়ে মিনারা আক্তার বাদী হয়ে কালিয়াকৈর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করে। অভিযোগ দায়ের হলেও  আইনের কোন সহযোগিতা না পেয়ে। ফের শুক্রবার সকালে প্রেমিকের বাড়িতে বিয়ের দাবিতে  অনশন করে। তাৎক্ষণিক ওই ওয়ার্ড ইউপি সদস্য শফিকুল ইসলাম বিষয়টি জানতে পেরে ঘটনাস্থলে যায়। পরে ছেলের অভিভাবকের আশ্বাসে ওই প্রেমিকাকে তার হেফাজতে নিয়ে যায়।

ফুলবাড়িয়া ইউনিয়নের জাথালিয়া গ্রামের ৬ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য শফিকুল ইসলাম জানান, প্রেমের সম্পর্ক ঘুরে ওই মেয়ের সাথে একাধিকবার দৈহিক সম্পর্ক গড়ে তুলেছে। বিষয়টি খুব দুঃখজনক। তবে এ বিষয়ে থানায় একটি অভিযোগ করা হয়েছে। পরে এলাকার  মাতব্বরগণ এ বিষয়টি নিয়ে সমাধান করার চেষ্টা করে। কিন্তু ছেলের পক্ষের লোকজন বিচারে হাজির হয়নি তাই সমাধান করা সম্ভব হয়নি। শুক্রবার সকালে ওই শিক্ষার্থী প্রেমিকার বাড়িতে অনশন করছেন জানতে পেরে ঘটনাস্থলে গিয়ে ছেলের অভিভাবক ওই সদস্যকে সমাধানে আশ্বাস দিলে ওই প্রেমিকাকে তাহার হেফাজতে নিয়ে যায়।

কালিয়াকৈর থানাধীন ফুলবাড়িয়া পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ উপ পরিদর্শক (এস আই) সোহেল মোল্লা জানান, ঘটনাটি প্রেম গঠিত । বিষয়টি নিয়ে একাধিকবার সমাধানের চেষ্টা করলেও ছেলের পক্ষ হাজির না হওয়ায়। সমাধান করা সম্ভব হচ্ছে না। তবে মেয়ের অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

নারী ও শিশু বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৮৯০৭ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই